ফাঁকা চেম্বারে রিসিপশনিস্টকে ধর্ষণ, ডাক্তার গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: ৬:২৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩, ২০২০

ফাঁকা চেম্বারে রিসিপশনিস্টকে ধর্ষণ, ডাক্তার গ্রেপ্তার

পিরোজপুরে চেম্বারের রিসিপশনিস্টকে ধর্ষণের অভিযোগে শাহ আলম (৫৫) নামের এক ডাক্তারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধর্ষিতা গতকাল রাতে ওই ডাক্তারের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়েরের পর গতকাল রাতেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ফাঁকা চেম্বারে রিসিপশনিস্টকে ধর্ষণ, ডাক্তার গ্রেপ্তার
Share

অ+অ-

পিরোজপুরে চেম্বারের রিসিপশনিস্টকে ধর্ষণের অভিযোগে শাহ আলম (৫৫) নামের এক ডাক্তারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধর্ষিতা গতকাল রাতে ওই ডাক্তারের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়েরের পর গতকাল রাতেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, চলতি বছর পিরোজপুর সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এসএসসি পাস করে ওই ছাত্রী। এর পর গত ১৮ জুন সে পিরোজপুর শহরের ডায়বেটিকস সমিতিতে কর্মরত ডাক্তার শাহ আলমের সদর রোডের (বড় মসজিদের পূর্ব পাশে) ব্যক্তিগত চেম্বারে রিসিপশনিস্ট পদে সাত হাজার টাকা বেতনে চাকরি নেয়। চাকুরি নেওয়ার পর থেকে ডাক্তার শাহ আলম মেয়েটিকে নানা ভাবে উত্যক্ত করে আসছিলো। গত ১ জুলাই চেম্বারে কেউ না থাকার সুযোগ নিয়ে মেয়েটিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় ওই মেয়েটি শাহ আলমের বিবস্ত্র ছবি তোলার চেষ্টা করলে তিনি মেয়েটির মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে ভেঙে ফেলেন।

ফাঁকা চেম্বারে রিসিপশনিস্টকে ধর্ষণ, ডাক্তার গ্রেপ্তার
Share

অ+অ-

পিরোজপুরে চেম্বারের রিসিপশনিস্টকে ধর্ষণের অভিযোগে শাহ আলম (৫৫) নামের এক ডাক্তারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধর্ষিতা গতকাল রাতে ওই ডাক্তারের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়েরের পর গতকাল রাতেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, চলতি বছর পিরোজপুর সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এসএসসি পাস করে ওই ছাত্রী। এর পর গত ১৮ জুন সে পিরোজপুর শহরের ডায়বেটিকস সমিতিতে কর্মরত ডাক্তার শাহ আলমের সদর রোডের (বড় মসজিদের পূর্ব পাশে) ব্যক্তিগত চেম্বারে রিসিপশনিস্ট পদে সাত হাজার টাকা বেতনে চাকরি নেয়। চাকুরি নেওয়ার পর থেকে ডাক্তার শাহ আলম মেয়েটিকে নানা ভাবে উত্যক্ত করে আসছিলো। গত ১ জুলাই চেম্বারে কেউ না থাকার সুযোগ নিয়ে মেয়েটিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় ওই মেয়েটি শাহ আলমের বিবস্ত্র ছবি তোলার চেষ্টা করলে তিনি মেয়েটির মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে ভেঙে ফেলেন।এদিকে মেয়েটির মোবাইলের দাম বাবদ ইসলামী ব্যাংক পিরোজপুর শাখার তার ব্যক্তিগত চেকের (০০৯৬৫৫২) মাধ্যমে ১০ হাজার টাকা প্রদান করেন।  কিন্তু মেয়েটির পরিবার ব্যাংকে গিয়ে জানতে পারে ওই চেকে ডাক্তার শাহ আলমের কোন গচ্ছিত টাকা নাই।

এ ব্যাপারে পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরুল ইসলাম বাদল বলেন, গত রাতে মেয়েটির অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথেই ওই ডাক্তারকে গ্রেপ্তার করে আনি। তার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের হয়েছে। মেয়েটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য আজ শুক্রবার পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আর্কাইভ

August 2020
S M T W T F S
« Jul    
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com