যেমন হবে মুজিববর্ষের ২০০ টাকার নোট

প্রকাশিত: ১০:৫৪ অপরাহ্ণ, মার্চ ৫, ২০২০

যেমন হবে মুজিববর্ষের ২০০ টাকার নোট

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে প্রথমবারের মতো ২০০ টাকা মূল্যমানের প্রচলনযোগ্য স্মারক ব্যাংক নোট মুদ্রণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

একইসঙ্গে ১০০ টাকা মূল্যমান স্বর্ণ ও রৌপ্য স্মারক মুদ্রা এবং ১০০ টাকা মূল্যমান স্মারক নোট চালু করতে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ১৮ মার্চ থেকে ওই স্বর্ণ ও রৌপ্য মুদ্রা এবং নোট দুটি ব্যাংকের মতিঝিল অফিসসহ অন্যান্য শাখা অফিস থেকে পাওয়া যাবে।

২০০ টাকা মূল্যমান স্মারক ব্যাংক নোটটি অন্যান্য ব্যাংক নোটের ন্যায় দৈনন্দিন লেনদেনে ব্যবহার করা যাবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। শতভাগ কটন কাগজে মুদ্রিত এবং ইউভি কিউরিং ভার্নিশযুক্ত ২০০ টাকা মূল্যমান স্মারক ব্যাংক নোটের আকার নির্ধারণ করা হয়েছে ১৪৬ মিলিমিটার বাই ৬৩ মিলিমিটার।

গভর্নর ফজলে কবির স্বাক্ষরিত ওই স্মারক ব্যাংক নোটের একভাগের বামপাশে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি এবং ব্যাকগ্রাউন্ডে নোটের মূল্যমান ‘৳২০০’ ও ‘২০০’ ডিজাইন হিসেবে মুদ্রিত রয়েছে। এছাড়া নোটের উপরের অংশে ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্মশতবর্ষ ১৯২০-২০২০’, উপরে ডানদিকে কোণায় ইংরেজিতে মূল্যমান ‘২০০’ ও ডানদিকে নিচে কোণায় বাংলায় মূল্যমান ‘৳২০০’ লেখা রয়েছে। নোটের পেছনভাগে ডানদিকে গ্রামবাংলার বহমান নদী ও নদীর পাড়ের দৃশ্য এবং এর বামপাশে বঙ্গবন্ধুর যুক্তফ্রন্টের মন্ত্রী থাকাকালীন সময়ের একটি ছবি মুদ্রিত রয়েছে।

নোটের উপরিভাগে ইংরেজিতে ‘Father of the Nation Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman Centenary 1920-2020’ এবং নিচে বামদিকে কোণায় ‘Birth Centenary’ লেখা রয়েছে। নোটের উপরে বাম কোণে বাংলায় মূল্যমান ‘২০০’ ও ডান কোণে বাংলাদেশ ব্যাংকের মনোগ্রাম এবং নিচে ডানদিকে কোণে ইংরেজিতে মূল্যমান ‘৳২০০’ লেখা রয়েছে।

নোটটির সম্মুখভাগে বাম পাশে ৪ মিলিমিটার চওড়া নিরাপত্তা সুতা সংযোজন করা হয়েছে যাতে বাংলাদেশ ব্যাংকের মনোগ্রাম এবং ‘২০০ টাকা’ খচিত রয়েছে এবং নোটটি নাড়াচড়া করলে নিরাপত্তা সুতার রং লাল হতে সবুজ রংয়ে পরিবর্তিত হয় এবং এতে সোনালি বার ইফেক্ট দেখা যায়। এছাড়া নোটের ডান দিকে কোণায় ইংরেজিতে মুদ্রিত ‘২০০’ মূল্যমানটি উন্নতমানের নিরাপত্তা কালি দ্বারা মুদ্রিত; যাতে নোটটি নাড়াচড়া করলে এর রং সোনালি থেকে সবুজ রংয়ে পরিবর্তিত হয় এবং একটি উজ্জ্বল বার উপর থেকে নিচে উঠানামা করে।

স্মারক ব্যাংক নোটটিতে জলছাপ হিসেবে ‘বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি’, ‘২০০’ এবং ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের মনোগ্রাম’ রয়েছে। বাজারে প্রচলিত অন্যান্য ব্যাংক নোটের ন্যায় ২০০ টাকা মূল্যমান এ স্মারক ব্যাংক নোটটিতে নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য হিসেবে ইন্টাগ্লিও কালির অসমতল ছাপা, লুকানো ছাপা, মাইক্রোপ্রিন্ট, দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য ৩টি ত্রিভুজ, ইউভি ফাইবার ইত্যাদি রয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছে, মুদ্রা সংগ্রাহকদের চাহিদার বিষয়টি বিবেচনা করে ২০০ টাকা মূল্যমান স্মারক ব্যাংক নোটটির নিয়মিত নোটের পাশাপাশি ২০০ টাকা মূল্যমান নমুনা স্মারক ব্যাংক নোট মুদ্রণ করা হয়েছে। এটা বাংলাদেশ ব্যাংক, মতিঝিল অফিস এবং মিরপুরের টাকা জাদুঘর থেকে নির্ধারিত মূল্যে সংগ্রহ করা যাবে।

২০০ টাকার সাধারণ নোট বিনিময়যোগ্য হলেও ১০০ টাকার স্বর্ণ ও রৌপ্য মুদ্রা এবং ১০০ টাকার স্মারক নোট লেনদেনে ব্যবহার করা যাবে না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

আর্কাইভ

মে ২০২০
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« এপ্রিল    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com