দিল্লির দাঙ্গাবাজদের হাত থেকে বহু মানুষকে রক্ষা করেছেন যে পুলিশ কর্মকর্তা

প্রকাশিত: ৩:৪২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২০

দিল্লির দাঙ্গাবাজদের হাত থেকে বহু মানুষকে রক্ষা করেছেন যে পুলিশ কর্মকর্তা

হিন্দুত্ববাদীদের তাণ্ডবে ভারতের রাজধানী দিল্লি যখন জ্বলছিল, তখন অদূরেই প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ উপভোগে মত্ত ছিলেন পুলিশরা।

গত রোববার থেকে চলা ওই সহিংসতায় পুলিশের নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই।

এমন সব অভিযোগের মধ্যেই দাঙ্গা থেকে অনেক মানুষকে রক্ষা করে প্রশংসা কুঁড়াচ্ছেন ভারতের এক পুলিশ কর্মকর্তা। ওই পুলিশ কর্মকর্তার নাম নিরাজ জাদাউন এবং দিল্লির প্রতিবেশি রাজ্য উত্তর প্রদেশে তিনি সুপারিন্টেন্ডেন্ট পদে কর্মরত বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

বিবিসি জানায়, দিল্লি দাঙ্গার তৃতীয় দিনে দিল্লির কারায়াল নগরের সীমান্তবর্তী একটি চেকপয়েন্টে টহল দিচ্ছিলেন নিরাজ জাদাউন। এ সময় ওই এলাকা থেকে গুলির শব্দ শুনতে পান তিনি। প্রচলিত রীতি ভেঙে নিজের টিম নিয়ে দিল্লিতে ঢুকে পড়েন নিরাজ। তিনি দেখেন, আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে সিএএ-বিরোধীদের ওপর হামলা করছে একদল দুর্বৃত্ত। নিরাজ নিজের টিমসহ ওই বন্দুকধারী হামলাকারীদের প্রতিহত করেন।

ঘটনার বিবৃতি দিয়ে উত্তর প্রদেশের পুলিশ কর্মকর্তা নিরাজ জাদাউন জানান, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি গুলির শব্দ শোনার পর এর উৎস খুঁজতে গিয়ে সীমান্ত পেরিয়ে দিল্লিতে ঢুকে দেখি ৪০-৫০ জন মানুষ গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিচ্ছে। তাদের একজন পেট্রোল বোমা নিয়ে লাফ দিয়ে একটি বাড়ির মধ্যে ঢুকে পড়ে। একজন গুলি চালাতে প্রস্তুতি নিচ্ছে। এমন ভয়ঙ্কর সব দৃশ্য দেখে নিয়মের খেয়াল ছিল না আমার। রীতির তোয়াক্কা না করেই দল নিয়ে হামলাকারীদের প্রতিহত করি। বাড়িতে লাগা আগুন নেভাই।

মাত্র কয়েকজন পুলিশ নিয়ে প্রায় অর্ধশত দাঙ্গাবাজকে কিভাবে রুখে দিলেন প্রশ্নে নিয়াজ বলেন, ‘ হ্যা অল্প কয়েকজন পুলিশ সদস্য নিয়ে গোটা পঞ্চাশেক সশস্ত্র দাঙ্গাবাজদের মোকাবেলা বড়ই বিপজ্জনক ছিল।

তিনি বলেন, আমরা প্রথমে তাদের সঙ্গে আলোচনার চেষ্টা করি। কিন্তু তা ব্যর্থ হলে গুলি চালাব বলে সতর্ক করি। তাদের ভয়ভীতি প্রদর্শনের পর তারা পিছু হটে। কিন্তু কয়েক সেকেন্ড পরে তারা আমাদের ওপর ঝাঁকে ঝাঁকে পাথর ছুড়তে শুরু করে। গুলির শব্দও শুনতে পাই।

নিরাজ বলেন, ওই ১৫ সেকেন্ড ছিল আমার জীবনের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর সময়। সৌভাগ্যক্রমে আমার টিম সেদিনের ওই ঘটনার মোকাবেলা করতে পেরেছে। ওই এলাকায় অনেক দোকানে বাঁশের মজুদ রয়েছে। আগুন ধরে গেলে পুরো এলাকায় ছড়িয়ে তা পড়ত। নিহতের সংখ্যা অনেক বেশি বেড়ে যেত। ’

উল্লেখ্য, ভারতের এক রাজ্যের পুলিশ সদস্যকে অন্য রাজ্যে ঢুকতে গেলে কর্তৃপক্ষের অনুমোদন নিতে হয়। তবে দাঙ্গাবাজদের রুখতে নিরাজ সেদিন একাই নন, পুরো দলকে নিয়ে দিল্লিতে প্রবেশ করেছেন।

এমন আইন ভঙ্গ করে শাস্তির বদলে প্রশংসিত হয়েছেন নিরাজ।

হিন্দি দৈনিক ‘আমার উজালা’র প্রতিবেদক রিচি কুমার নিরাজ জাদাউনের এই সিদ্ধান্তকে তার দেখা সবচেয়ে সাহসী সিদ্ধান্ত বলে আখ্যা দিয়েছেন।

দিল্লির পুলিশরা এমন কর্তব্যপরায়ণ হলে অঞ্চলটিতে দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ত না ও এতোগুলো মানুষ মারা যেত না বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে।

পুলিশের কর্তব্য কি তা দিল্লি পুলিশকে নিরাজ জাদাউন থেকে শিখে নিতে বলেছেন কেউ কেউ।

আর্কাইভ

এপ্রিল ২০২০
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« মার্চ    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com