মিজানুর রহমান আযহারী জামায়াতি প্রোডাক্ট

প্রকাশিত: ৪:৪৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২০

মিজানুর রহমান আযহারী জামায়াতি প্রোডাক্ট

মিজানুর রহমান আযহারী জামায়াতি প্রোডাক্ট। জামাতের রাজনীতি বন্ধ থাকায় এই প্রোডাক্ট নিয়ে ওরা সারাদেশে সাংগঠনিক তৎপরতা চালাচ্ছে। আর এই কাজে তাদের সহযোগিতা করছে বঙ্গবন্ধু ও জয়বাংলা বলে মুখে ফেনা তোলা সরকারি কর্মকর্তারা।

আযহারীর সভা নিয়ে সিলেটের জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে দেয়া ইসলামী ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা, পুলিশ সুপার, জেলা প্রশাসকের বক্তব্য দেখে এমন ধারণা যে কারো মনে আসতে পারে। আসলে এই মাহফিলের বিতর্কিত বক্তা মি. র. আযহারী সম্পর্কে তাদের হয় কোন ধারনা নেই অথবা উনারা সব জানেন।

ঐ সভায় আযহারীর মাহফিল প্রসঙ্গে সিলেট জেলার পুলিশ সুপারের বক্তব্য শুনুন। উনি বলেছেন, “আমি অবাক হই যখন দাঁড়ি টুপি মাথায় দিয়ে আপনারা একজন অন্যজনের সমালোচনা করেন। কোরআনের মাহফিল বন্ধ করতে আসেন, আমরা মর্মাহত হই। এখানে কোরআনের কথা হয় মানুষ উপকৃত হয় আমি একজন মুসলমান হয়ে কীভাবে এই মাহফিল হতে বাধা দেবো?” আসলেইতো উনি কিভাবে বাধা দেবেন?

উনারা কোরআনের তাফসির হবে, সে খবর জানেন কিন্তু জানেন না, কে বা কারা করছে এই তাফসির। উনাদের কি ভ্রান্ত মওদুদিবাদ সম্পর্কে ধারণা নেই?

উনারা জানেন না, এই আযহারীর রসুল (সা.) এর শানে করা বেয়াদবি ও সমালোচনার মুখে ক্ষমা চাওয়ার কথা। প্রশাসন ও সরকারের নীতি নির্ধারকদের অজ্ঞতার সুযোগটা কাজে লাগিয়ে পুরো দেশে খোমেনীর ক্যাসেট বিপ্লবের আদলে ইউটিউব বিপ্লবের স্বপ্ন দেখছে জামায়াত। আর এই স্বপ্ন সফলে তারা অনেকটাই কামিয়াব।

এমনিতেই তাফসির মাহফিল ও ওয়াজ মাহফিল শুনলে প্রশাসন অশেষ নেকি অর্জনের আশায় সর্বাত্মক সহযোগিতা দেয়। মজুতদার, আড়ৎদার, ঘুষখোরেরা বিরাট অংকের চাঁদা নিয়ে ইসলামের খেদমতে জান কোরবান করে। এলাকার মেম্বার-চেয়ারম্যানেরা অতিথি হয়ে মঞ্চে বসার আনন্দে প্রচার-প্রচারণায় উঠেপড়ে লাগে।

এরমধ্যে সাঈদীর ভাবশিষ্য জামায়াতি বক্তাকে সরকারি মহলে জায়েজ করতে বিভিন্ন মাহফিলে আওয়ামী লীগের বড় বড় নেতাকে প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি হিসাবে সামনে আনার কৌশল শুরু করেছে জামায়াতিরা। এদিকে নীতি-আদর্শকে জলাঞ্জলি দিয়ে হালুয়া-রুটির ভোজে মত্ত এইসব নেতা দাওয়াত পেয়েই এসব মাহফিল আয়োজনের সহযোগী শক্তি হয়ে যাচ্ছেন।

ফলে আযহারীকে মাঠে নামিয়ে কোরআনের তাফসিরের নামে নিজেদের ইজম ফাঁকে-ফোঁকরে বিতরণ করে যাচ্ছে জামাত। এই ঘুরে দাঁড়ানোর মিশনে ওরা অনেকটাই সফল। তাই মিজানুর রহমান আযহারীর মাহফিল বাতিল হওয়ায় ফেসবুকে এমন কিছু মানুষকে ঘুরিয়েপেঁচিয়ে হায় হায় করতে দেখে অবাক হয়েছি।

বুঝতে পারছি বজ্র আঁটুনি ফসকা গেরো দিয়ে জামায়াতকে ভিন্ন কৌশলে রাজনীতি করার সুযোগ ঠিকই দেয়া হয়েছে।

  • আব্দুল করিম কিম: সংগঠক।

আর্কাইভ

ফেব্রুয়ারি ২০২০
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জানুয়ারি    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com