ইয়াবা দিয়ে কলেজ ছাত্রীদের ফাঁসানোর হুমকি: বিশ্বনাথের এসআই প্রত্যাহার

প্রকাশিত: ৯:১৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯

ইয়াবা দিয়ে কলেজ ছাত্রীদের ফাঁসানোর হুমকি: বিশ্বনাথের এসআই প্রত্যাহার

সিলেটের বিশ্বনাথ থানা পুলিশের এসআই আব্দুল লতিফকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। শুক্রবার (১৩ ডিম্বের) দুপুরে সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিনের নির্দেশে বিশ্বনাথ থানা থেকে তাকে সিলেট পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার (ক্লোজড) করা হয়। ইয়াবা দিয়ে কলেজে পড়ুয়া তিন বোনকে জেলে ঢোকানোর হুমকি দেওয়ার অভিযোগের প্রেক্ষিতে ওই এসআই আব্দুল লতিফকে ক্লোজড করা হয়। ইয়াবা দিয়ে কলেজে পড়ুয়া তিন বোনকে জেলে ঢোকানোর হুমকি দেওয়ায় এসআই আব্দুল লতিফকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্বনাথ থানার ওসি শামীম মুসা। তিনি বলেন, রাহেলা বেগম নামের এক নারীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে এসপি স্যার আমাদের থানার এসআই আব্দুল লতিফকে ক্লোজড করেছেন।

গত ৮ডিসেম্বর রোববার বিশ্বনাথ থানা পুলিশের এসআই আব্দুল লতিফের বিরুদ্ধে হুমকির অভিযোগ এনে সিলেটের পুলিশ সুপার বরাবরে লিখিত অভিযোগ দেন ওই দুই কলেজ ছাত্রীর মা রাহেলা বেগম (৪৫)। তিনি বিশ্বনাথ উপজেলা সদরের পার্শ্ববর্তি জানাইয়া গ্রামের আশিক আলীর স্ত্রী।

এর আগে গত ৫ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার রাহেলা বেগমের সতিন একই বাড়ির বাসিন্দা মনোয়ারা বেগম (৪০) তার সতিন রাহেলা ও তার ছেলে মেয়েদের বিরুদ্ধে থানায় মারধরের লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগ তদন্তে ওইদিন দু’বার দুই সতিনের বাড়িতে গিয়ে এসআই লতিফ রাহেলা বেগমের ঘরে তল্লাশি চালিয়ে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করেন এবং তার কলেজে পড়–য়া মেয়েদের ইয়াবা দিয়ে জেলে ঢোকানোর হুমকি দেন। এসময় হুমকি দিয়ে বলেন ‘তোদের মতো হাজারও বেহায়া মেয়েদের জেলে ঢোকিয়ে উচিৎ শিক্ষা দিয়েছি’। ‘আর আমার হাত কতটুকু লম্বা তোরা কেন? প্রধানমন্ত্রীও জানেন-না’।

এসআই লতিফের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আনার পর গত ১২ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার মা ও মেয়েদের সিলেটের নিজ কার্যালয়ে ডেকে রাহেলা বেগমের দেওয়া অভিযোগের তদন্ত করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন। তদন্তে প্রাথমিকভাবে সত্যতা পাওয়ায় তিনি এসআই আব্দুল লতিফকে ক্লোজড করেন।

আর্কাইভ

August 2020
S M T W T F S
« Jul    
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com