আওয়ামী লীগ আমার আবেগ, আমার অস্তিত্ব: কামরান

প্রকাশিত: ১:৫০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৭, ২০১৯

আওয়ামী লীগ আমার আবেগ, আমার অস্তিত্ব: কামরান

সিলেটে আওয়ামী লীগের রাজনীতির এক অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে ওঠেছিলেন বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। টানা প্রায় ১৭ বছর সিলেটে শহর ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। এর আগে তিন দফায় ছিলেন শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। সবমিলিয়ে প্রায় তিন দশক সিলেটে আওয়ামী লীগকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। নানা বিতর্ক সত্ত্বেও সিলেটের রাজনীতিরই মহীরুহ হয়ে ওঠেছিলেন কামরান।

প্রায় তিন দশক পর আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব থেকে বাদ পড়লেন কামরান। বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) অনুষ্ঠিত সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি-সম্পাদক পদে ঠাঁই হয়নি বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের।

সম্মেলনে মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটিতে কামরানের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ এবং সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন অধ্যাপক জাকির হোসেন।

নবগঠিত জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বৃহস্পতিবার শনিবার (৭ ডিসেম্বর) বেলা ১টার দিকে ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে বদর উদ্দিন আহমদ কামরান লিখেন-

”অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা!!!

সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন সফল ও সার্থকভাবে সম্পন্ন হওয়ায় আমি গভীর কৃতজ্ঞতা জানাই আমাদের অভিভাবক, সফল রাষ্ট্র নায়ক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক, মাননীয় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী জননেতা ওবায়দুল কাদের এমপি সহ পরম শ্রদ্ধেয় জাতীয় নেতৃবৃন্দ, সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, ওয়ার্ড, উপজেলা, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মী, শুভাকাঙ্ক্ষী, শুভানুধ্যায়ী, কর্মী, সমর্থক সহ সর্বস্তরের সম্মানিত সিলেটবাসীকে। আপনাদের আন্তরিক সহযোগিতা ও ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় একটি আড়ম্বরপূর্ণ সফল সম্মেলন আমরা সম্পন্ন করতে পেরেছি। এই সম্মেলনের মাধ্যমে সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নতুন সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকদের জানাই প্রাণঢালা অভিনন্দন। আমি আশা করি আপনাদের নেতৃত্বে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যক্রম আরও বেশি বেগবান হবে। আপনারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও অগ্রগতির রাজনীতির সুফল পুণ্যভূমি সিলেটে বাস্তবায়নে কাজ করবেন, আওয়ামী লীগের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখবেন। দলের প্রয়োজনে যখনই আমাকে ডাকবেন আমি আমার পূর্ণ শক্তি নিয়ে আপনাদের পাশে থাকব।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের এক সৈনিক হয়ে দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার সুখী, সমৃদ্ধ, সুখ ও শান্তির ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলতে আওয়ামী লীগের কর্মী হয়ে আমৃত্যু কাজ করে যেতে চাই। আওয়ামী লীগ আমার আবেগ, আমার অস্তিত্ব। আমার সব ভালবাসা আর উচ্ছ্বাস আওয়ামী লীগ কে ঘিরে। দল ও দলের সকল স্তরের নেতা কর্মীদের প্রতি আমার হৃদয়জ শুভেচ্ছা রইল। মহান আল্লাহ পাক যেন আমার প্রাণপ্রিয় নেত্রী, বিশ্ব শান্তির অগ্রদূত, বাংলার মানুষের আশা ভরসাস্থল, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা কে দীর্ঘায়ু দান করুন, সুস্থ রাখুন এবং উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে ও জাতির ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করার আরও বেশি শক্তি দান করুন। দল ও দলের নেতা কর্মীদের সাথে আমার আত্মার সম্পর্ক, আমার হৃদয়ের ভালবাসা আমার প্রিয় দলকে আর প্রিয় সিলেটকে ঘিরে। দলের সাথে সবসময় ছিলাম, এখনও আছি এবং ইন শা আল্লাহ ভবিষ্যতেও দলের প্রয়োজনে নিজের সবটুকু দিয়ে কাজ করে যেতে চাই। সকলের দীর্ঘায়ু ও সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করি।”

প্রসঙ্গত, ১৯৬৮ সালে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে যুক্ত কামরানের নির্বাচনী পদযাত্রা শুরু ১৯৭৩ সালে ওয়ার্ড কমিশনার নির্বাচিত হয়ে। ১৯৮৯ সালে এরশাদ বিরোধী আন্দোলনের উত্তাল সময়ে শহর আওয়ামী লীগের দায়িত্ব দেওয়া হয় কামরানকে। হন সিলেট শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। ১৯৯২ সালে এবং ১৯৯৭ সালে পুনরায় সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০০২ সালে প্রথমবারের মত সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন কামরান। ২০০৫ এ সম্মেলনের মাধ্যমে এবং ২০১১ সালে গঠিত কমিটিতে মহানগর আওয়ামী লীগের পুনরায় সভাপতির হন সদাহাস্য এই নেতা। প্রায় তিন দশক পর এবারই সিলেটে কামরানবিহীন কমিটি করলো আওয়ামী লীগ।

আর্কাইভ

জানুয়ারি ২০২০
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« ডিসেম্বর    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com