বিশ্বনাথে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ইউপি অফিসে বসে মদ পান করার অভিযোগ

প্রকাশিত: ৫:৩৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৪, ২০১৯

বিশ্বনাথে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ইউপি অফিসে বসে মদ পান করার অভিযোগ

সিলেটের বিশ্বনাথের দশঘর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান ছাতির ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারে বসেই প্রকাশ্যে গাঁজা সেবন ও মদ পান করেন বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। মদ্যপানের অভিযোগ ছাড়াও প্রতিটি জন্ম ও মৃত্যু সনদ, জন্ম নিবন্ধন, বয়স্ক ভাতা, মাতৃত্বকালীণ ভাতা দেওয়ার আগে ৭ থেকে ৮ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ তোলা হয় তার উপর।

রোববার (৩ নভেম্বর) সন্ধ্যায় দশঘর ইউনিয়নে নির্বাচন বাস্তবায়ন ও দুর্নীতিমুক্ত ইউনিয়ন গড়ার লক্ষ্যে প্রতিবাদ সভা বক্তারা এই অভিযোগ করেন। প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে দশঘর ইউনিয়নের সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সিলেটের বিশ্বনাথের দশঘর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান ছাতির। স্থানীয় বাইশঘর গ্রামের বাসিন্দা ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান ছাতির বর্তমানে দশঘর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য। ২০০৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর স্থানীয় এমপি শফিকুর রহমান চৌধুরীর হাত ধরে তিনি বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন।

পীরের বাজার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাসুক মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ।

দশঘর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াছ মিয়া ও ছাত্র সংসদের আহবায়ক শাহ ফারুক মিয়ার যৌথ পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সমাজসেবক সিদ্দিকুর রহমান, প্রবীণ মুরব্বী চেরাগ আলী, দশঘর ইউনয়িন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তজম্মুল আলী, উপজেলা যুবদল নেতা তাজুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা শহীদুজ্জামান সেলন, যুবদল নেতা দিলু মিয়া, ইউনয়িন সেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহিত চৌধুরী, সেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা মাহমুদুল করিম মঞ্জু, মাসুম আহমদ, সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক মহসিন আহমদ, সদস্য ডালিম আহমদ, শওকত হোসেন, জাকির আহমদ, সুয়েব আহমদ, মালেক মিয়া। শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সদস্য সুজাত আহমদ ও ঝুমন আহমদ।

দশঘর ইউনয়িন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মদ পানের কোন অভিযোগ থানায় আছে কি না? জানতে চাইলে এ প্রসঙ্গে বিশ্বনাথ থানার ওসি শামীম মুসা বলেন, যোগদানের পর ওই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় মদ সংক্রান্ত কোন অভিযোগ কেউ দেননি।

এ বিষয়ে দশঘর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান ছাতির বলেন, আমি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারে বসে মদপান করি না। আর সরকার নির্ধারিত ফি ছাড়া অতিরিক্ত কোন ফি নেওয়া হয় না।

প্রসঙ্গত, ২০০৩ সালের পর মামলা জনিত কারণে ওই ইউনিয়নে দীর্ঘ ১৬ বছর ধরে নির্বাচন স্থগিত রয়েছে। জগন্নাথপুর ও বিশ্বনাথের সীমানা নির্ধারণ নিয়ে উচ্চ আদালতে ওই মামলা রয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আর্কাইভ

নভেম্বর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« অক্টোবর    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com