এরদোগানের প্রশংসায় ট্রাম্প

প্রকাশিত: ৯:৩৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৮, ২০১৯

এরদোগানের প্রশংসায় ট্রাম্প

সিরিয়ায় কুর্দিবিরোধী অভিযানে যুদ্ধবিরতির সিদ্ধান্ত নেওয়ায় তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, ‘তিনি (এরদোগান) যা করেছেন আমি তার প্রশংসা করি।’

চলতি মাসের ৯ অক্টোবর থেকে সীমান্ত নিরাপদ, সিরিয়া শরণার্থীদের ফেরত পাঠানো ও নিরাপদ অঞ্চল গঠনের জন্য উত্তর সিরিয়ার কুর্দিদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে তুরস্ক। খবর ইয়েনি শাফাকের।

সীমান্ত এলাকা বরাবর পরিকল্পিত নিরাপত্তা অঞ্চল থেকে কুর্দিশ বাহিনী সরে যাওয়ার শর্তে সিরিয়ায় অভিযান ও হামলা পাঁচ দিনের জন্য বন্ধে রাজি হয়েছে তুরস্ক।

মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ও তুরস্কের কর্মকর্তাদের মধ্যে বৃহস্পতিবার এক অনিশ্চিত বৈঠকের পর এমন ঘোষণা এসেছে।

এরপর ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় বলেন, তুরস্ক থেকে বড় খবর এসেছে। শিগশিরই ভাইস প্রেসিডেন্ট ও সেক্রেটারি পম্পেও সংবাদ সম্মেলন করবেন। ধন্যবাদ রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান। লাখ লাখ মানুষের জীবন বাঁচবে।

১২০ ঘণ্টার হামলা বন্ধের সম্মতিতে স্বস্তি ফিরে এসেছে। তুরস্কের অভিযান শুরু হওয়ায় ন্যাটোমিত্র যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দেশটির সংকট নজিরবিহীন বাড়ছিল।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের সঙ্গে প্রত্যাশিত সময়ের চেয়েও কয়েক ঘণ্টা দীর্ঘ বৈঠকের পর পেন্স সাংবাদিকদের বলেন, সিরীয় ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেসের (এসডিএফ) যোদ্ধাদের সম্পূর্ণ প্রত্যাহারের শর্তে তুরস্কের অভিযান পুরোপুরি স্থগিত করা হয়েছে।

পরবর্তী সময়ে তুরস্কের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেয়া হবে।

মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেন, পরবর্তী ১২০ ঘণ্টার মধ্যে তাদের প্রত্যাহার সহজ করে দিতে ওয়াইপিজির সঙ্গে কাজ করবে যুক্তরাষ্ট্র।

এসডিএফ প্রধান মাজলুম আবদি বলেন, রাস আল-আইন থেকে তাল-আবায়েদ পর্যন্ত পুরো অঞ্চলজুড়ে অস্ত্রবিরতি মেনে চলতে তারা প্রস্তুত।

এর আগে এরদোগানকে এ অভিযান শুরু না করার জন্য চিঠি দিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। কিন্তু তিনি এর কোনো তোয়াক্কা না করে বরং চিঠি ডাস্টবিনে ফেলে দেন এবং সিরিয়া অভিযান শুরু করেন।

আর্কাইভ

নভেম্বর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« অক্টোবর    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com