প্রচ্ছদ

ঈদের ছুটিতে সিলেটের চা বাগানগুলোতে উপচে পড়া ভিড়

প্রকাশিত হয়েছে : ১১:৫৪:৪৮,অপরাহ্ন ১৩ আগস্ট ২০১৯ | সংবাদটি ১৭ বার পঠিত

সিলেটেরকন্ঠডটকম

সিলেটের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের প্রতি আকৃষ্ট সারাদেশের ভ্রমণ প্রেয়সী মানুষ। এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখতে বছর জোড়ে পর্যটকদের উপস্থিতি থাকে চোখে পড়ার মত। ঈদ, পূজাসহ বিভিন্ন রাষ্ট্রীয় দিবসের ছুটিতে ভ্রমণ প্রেয়সী মানুষের পাদচারণায় মুখর থাকে সিলেটের পিকনিক স্পটগুলো। এবারও তার ব্যত্যয় ঘটেনি।

ঈদুল আযহার টানা ছুটিতে পরিবার পরিজন, বন্ধু বান্ধব মিলে ঈদের আনন্দকে ভাগাভাগি করতে যেন ঢল নেমেছিল সিলেটের জাফলং জিরোপয়েন্টে, জিরোপয়েন্ট ঘেঁষা ভারতীয় ঝুলন্ত ব্রিজ, ফাটাছড়া মায়াবী ঝর্ণা, বিছনাকান্দি, রাতারগুল, পান্তুমাইসহ সিলেটের নয়নাভিরাম নান্দনিক পর্যটন স্পট সমূহে। বাদ যায়নি সিলেটের চা বাগানগুলোও। এখানেও পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

প্রতিবারের মতো এবারের ঈদুল আযহার ছুটিতেও সিলেটে এসে উচ্ছ্বাসে-আনন্দে তারা স্বজনদের সাথে উপভোগ করছেন ঈদের আনন্দঘন মুহূর্ত। আজ মঙ্গলবার সিলেটের মালনীছড়া, আহমদ টি, লাক্কাতুরা ন্যাশনাল টি ও তারাপুর চা বাগান ঘুরে দেখা গেছে, ঈদের ছুটির শেষ দিকে এসে পর্যটকরা যাওয়ার সময় চা বাগানগুলোর উঁচু-নিচু, আঁকা-বাঁকা পথে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। পছন্দসই স্পটে ছবি তুলছেন আর আনন্দ-উল্লাস করছেন যে যার মতো। বাস, ট্রাক, মিনি বাসসহ ছোট যানবাহনে করে ভ্রমণ প্রেয়সী মানুষজন এখানে এসে ঈদের আনন্দকে ভাগাভাগি করতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন। সবুজ সতেজতায় নিজেকে আবৃত্ত করতে তাড়া ছুটে আসেন প্রকৃতির দোরগোড়ায়।

দিগন্ত জোড়া পাহাড়, ছোট বড় টিলা, পাহাড়ের গায়ে সবুজ লক্ষ লক্ষ গাছের সারী, পিয়াইনের বুকচিরে বয়ে চলা প্রবহমান পিয়াইন নদীর স্বচ্ছ স্ফটিক জল, নুড়ি পাথর, চা বাগান, গহিন বন, হিজল করচের অরণ্য ঘেরা সবুজ বেষ্টনী, পাহাড়ের বুক চিরে নেমে আসা ঝর্ণা ধারায় গা ভিজিয়ে ছবি সেলফিতে নিজেদের আবদ্ধ করে আনন্দে ভাগাভাগি করছেন আগত পর্যটক দর্শনার্থীরা।

সিলেটের লাক্কাতুরা চা বাগানে গিয়ে কথা হয় ঢাকা থেকে আগত মুবিন আহমদ নামের একজন পর্যটকের সাথে। তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, এখানকার সবুজ প্রকৃতির আর রূপ লাভণ্যতায় বিমুগ্ধ হয় পর্যটক দর্শনার্থীরা। এর অপরূপ সৌন্দর্যে আমরাও মুগ্ধ হয়েছি। এখানে ঘুরতে এসে আমরা বন্ধুবান্ধব সবাই অত্যন্ত খুশি।

কুমিল্লা থেকে বেড়াতে আসা আরেক পর্যটক মোসাদ্দেক হোসেন জানান, শহরের পাশে হওয়ায় চা বাগানের সৌন্দর্য দেখতে সে বন্ধুদের নিয়ে সেখানে এসেছে। তার অনেক ভালো লাগছে। বিশেষ করে বর্ষাকালে নতুন পাতা গজানোর কারণে বাগানে নতুন রূপ পেয়েছে বলে মন্তব্য তার।

এ ব্যাপারে সিলেটের জেলা প্রশাসক কাজী এমদাদুল ইসলাম জানান, ঈদের ছুটিতে আধ্যাত্মিক ও পর্যটক নগরের এই সিলেটে হাজার হাজার পর্যটকরা ঘুরতে আসেন দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে। তাদের নিরাপত্তাসহ সার্বিক বিষয়ের ওপর নজর রাখতে বিজিবি, পুলিশ ও সিভিল অ্যাভিয়েশনসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদেরকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com