প্রচ্ছদ

বড়লেখায় পরোয়ানাভুক্ত আসামীকে গ্রেপ্তারের পর ছেড়ে দিল পুলিশ!

প্রকাশিত হয়েছে : ১১:৪৭:৫০,অপরাহ্ন ০৬ মে ২০১৯ | সংবাদটি ২৬ বার পঠিত

সিলেটেরকন্ঠডটকম

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় আদালতের গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত দুই আসামীকে গ্রেপ্তারের পর একজনকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। যদিও পুলিশের দাবি, ওই আসামীর নিজের ও পিতার নাম ঠিক থাকলেও ঠিকানায় গরমিল হওয়ায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

থানা থেকে ছাড়া পাওয়া ওই আসামীর নাম আমির উদ্দিন (৫৩)। তিনি পূর্ব দক্ষিণভাগ গ্রামের মৃত আব্দুল বারির ছেলে। গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামীকে থানা থেকে ছেড়ে দেওয়ার খবরে ওই এলাকায় আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রেলওয়ের গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ এনে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া রেলওয়ে থানা পুলিশ ২০১৮ সালে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করে। রেলওয়ে থানার একটি মামলায় (৫/১৮ নম্বর) বড়লেখা উপজেলার পূর্ব দক্ষিণভাগ গ্রামে আমির উদ্দিন (৫৩) এবং অপর মামলায় (২/১৮ নম্বর) গাংকুল গ্রামের বাবুল ইসলাম (২৪) এর বিরুদ্ধে সম্প্রতি মৌলভীবাজার জেলার ৫ নম্বর আমল গ্রহণকারী আদালত গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে।

গত শুক্রবার (০৩ মে) রাত ৮টার দিকে বড়লেখা থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) জাহিনুর রহমান ও জাহাঙ্গীর হোসেন অভিযান চালিয়ে বাবুল ইসলামকে বাড়ি থেকে এবং আমির উদ্দিনকে দক্ষিণভাগ বাজারের হারিছ মাইক হাউজ থেকে গ্রেপ্তার করেন।

গ্রেপ্তারের প্রায় ৩ ঘন্টা পর রাতেই আমির উদ্দিনকে ছেড়ে দেওয়া হয়। অপর আসামী বাবুল ইসলামকে পরদিন আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

পরোয়ানাভুক্ত আসামীকে ছেড়ে দেওয়ার বিষয়ে সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) জাহিনুর রহমান রোববার (০৫ মে) রাত ৯টার দিকে মুঠোফোনে বলেন, ‘আমরা আসামী গ্রেপ্তারের মালিক। ছেড়ে দেওয়ার বিষয়ে জানি না। আপনি ওসি স্যার ও তদন্ত স্যারদের সাথে কথা বলেন।’

এই বিষয়ে জানতে চাইলে বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইয়াছিনুল হকের মুঠোফোনে রোববার (০৫ মে) রাতে কল করা হলেও রিসিভ না করায় তাঁর বক্তব্য জানা যায়নি।

পরে থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জসীম মুঠোফোনে কল করা হলে তিনি বলেন, ‘আমির উদ্দিনের বাড়ির ঠিকানা সঠিক নয়। গরমিল ছিল। থানায় আনার পর তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। হার্টের রোগী। আরো অনেক কিছু বিষয় আছে। এই সমস্ত কারণ বিবেচনা করে আমরা তাকে ছেড়ে দিয়েছি। যেহেতু ঠিকানায় ভুল। আমরা থানায় রাখতে পারি না। ঠিকানা ভুল থাকলে তো কোর্ট তাকে গ্রহণ করবেন না। পুলিশ হেফাজতে আনা হয়েছিল এটা সত্য।’

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com