প্রচ্ছদ

শেষ পর্যন্ত লড়াই করব: হিরো আলম

প্রকাশিত হয়েছে : ১:৫১:০২,অপরাহ্ন ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | সংবাদটি ৩ বার পঠিত

সিলেটেরকন্ঠডটকম

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র বৈধ করতে শেষ পর্যন্ত লড়াই করার ঘোষণা দিয়েছেন সময়ের আলোচিত এমপি প্রার্থী হিরো আলম।

বৃহস্পতিবার সকালে তার মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ার পর যুগান্তরকে এমনটিই জানিয়েছেন হিরো আলম।

তিনি বলেন, আমি এর শেষ দেখে ছাড়ব। আমি শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যাব। আমি এখন হাইকোর্টে যাচ্ছি-সেখানে আপিল করব। আশা করছি, সেখানে আমি আমার প্রার্থিতা ফিরে পাব।

হিরো আলম বলেন, আমার মনোনয়নপত্র ষড়যন্ত্র করে বাতিল করে দেয়া হয়েছে। আমি মনে করি, আমার মনোনয়নপত্রে কোনো ভুল ছিল না। নির্বাচন কমিশন যে ভুল ধরেছে, তা নিয়ে আমি চ্যালেঞ্জ করতে পারি।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই শুরু হয় মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া প্রার্থীদের আপিলের শুনানি।

শুনানির প্রথম দিনে অনেকে প্রার্থিতা ফিরে পেলেও কয়েকজনের প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ার আবেদন খারিজ হয়ে যায়। এর মধ্যে অন্যতম ছিলেন আলোচিত অভিনেতা হিরো আলম।

তিনি বগুড়া-৪ আসন থেকে নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন।

নির্বাচন ভবনের ৪৩ নম্বর সিরিয়ালে হিরো আলমের প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ার আবেদনের শুনানি হয়। এ সময় তিনি সেখানে উপস্থিত ছিলেন। নিজের প্রার্থিতার পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেন।

শুনানি শেষে নির্বাচন কমিশন তার মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করেন।

প্রার্থিতা বাতিলের বিরুদ্ধে হিরো আলমের আপিল নামঞ্জুর হওয়ার মধ্য দিয়ে তার নির্বাচন করা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ল। ফলে এখন পর্যন্ত নির্বাচনে দাঁড়ানো তার প্রায় অনিশ্চিত।

এর আগে গত রোববার মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হিরো আলমের মনোনয়নপত্র বাতিলের ঘোষণা দেন।

হিরো আলমের মনোনয়নপত্র বাতিলের পক্ষে যুক্তি দিতে গিয়ে এদিন নির্বাচন কর্মকর্তা আশরাফ হোসেন বলেন, ‘কেউ স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে মনোনয়ন নিলে তাকে তার নির্বাচনী এলাকার মোট ভোটারের ১ শতাংশের স্বাক্ষর লাগে। তবে হিরো আলম ভোটারদের স্বাক্ষরসংবলিত যে তালিকা জমা দিয়েছেন, তা যাচাই করে দেখা গেছে-তিনি ভুয়া ভোটারদের তালিকা জমা দিয়েছেন।’

এ বিষয়ে হিরো আলম বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকায় মোট ভোটার সংখ্যা তিন লাখ ১২ হাজার ৮৬। সে অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার জন্য তিন হাজার ১২১ জনের স্বাক্ষরই যথেষ্ট। আমি দিয়েছি তিন হাজার ৫০০ জনের স্বাক্ষর। কোনো অবস্থাতেই আমার মনোনয়নপত্র বাতিল হতে পারে না।

রাগে ও ক্ষোভে অভিমানী হিরো আলম বলেন, আমার প্রতি অন্যায় করা হয়েছে। আমার ক্ষমতা নেই বলেই মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন হিরো আলম। মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেন।

ইউটিউবে বিচিত্র অভিনয়, গান আর নাচ দেখিয়ে দেশব্যাপী আলোচনায় আসেন হিরো আলম। তার প্রকৃত নাম আশরাফুল আলম।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com