প্রচ্ছদ

যেসব পণ্যের দাম বাড়বে

প্রকাশিত হয়েছে : ৪:১৬:৫১,অপরাহ্ন ০৭ জুন ২০১৮ | সংবাদটি ৭ বার পঠিত

সিলেটেরকন্ঠডটকম

জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। এতে কিছু পণ্যের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

যেসব পণ্যের দাম বাড়বে তা নিম্নে তুলে ধরা হলো-

গাড়ি: পুরনো গাড়ি আমদানির অবচয় সুবিধা বছরভেদে ৫ শতাংশ কমানো হয়েছে। এতে সব ধরনের রিকন্ডিশন গাড়ির দাম কিছুটা বাড়তে পারে।

ফার্নিচার: বিভিন্ন ফার্নিচারের ভ্যাটের হার পরিবর্তন করা হয়েছে। উৎপাদন পর্যায়ে ৬ শতাংশের স্থলে ৭ শতাংশ এবং বিপণন পর্যায়ে ৪ শতাংশের স্থলে ৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করা হয়েছে।

ফলের জুস: উৎপাদন পর্যায়ে সব ধরনের ফলের জুসের ট্যারিফ মূল্য বাড়ানো হয়েছে। এতে করে স্থানীয় বাজারে সব ধরনের ফলের জুসের দাম বাড়তে পারে।

এনার্জি ডিংক: যুবকদের পছন্দের এ পানীয় উৎপাদন পর্যায়ে সম্পূরক শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৩৫ শতাংশ করায় বাজারে এনার্জি ড্রিংকসের দাম বাড়বে।

বডি স্প্রে: তীব্র গরমে ঘামের দুর্গন্ধ থেকে বাচতে বডি স্প্রে ব্যবহৃত হয়। এ পণ্য আমদানিতে সম্পূরক শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করায় এ দাম বাড়বে।

ফিলামেন্ট বাল্ব: অল্প দামের ফিলামেন্ট বাল্বের দাম বাড়বে। কারণ এর ব্যবহাররোধে এনবিআর ১০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করেছে।

আইপিএস-ইউপিএস: ২ হাজার ভোল্টের আইপিএস-ইউপিএস আমদানিতে শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করা হয়েছে।

কফি: ক্লান্তি অবসাদ দূর করতে কফি পানের অভ্যাস পরিহার করুন, কারণ কফি আমদানিতে ২০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা হয়েছে। এতে কফির দাম বাড়বে।

এছাড়া মোবাইল চার্জার, ভোল্টেজ স্ট্যাবিলাইজার, গ্রিন-টি, টমেটো কেচাস, টমেটো সস, শেভিং ব্লেড, শেভিং জেল, চশমার ফ্রেম, সানগ্লাস, লুবব্লেন্ডিং ওয়েল, স্ক্র্যাপ, সিগারেট পেপার, সানস্ক্রিন, সিরামিক বাথটব, জিকুজি, শাওয়ার ট্রে, নারিকেল, কাজু বাদামসহ সব ধরনের বাদাম, ক্যালেন্ডার, ছাপানো ছবি (পোস্টার), জার্সি, শীতের কার্টিগান, কাশ্মীরি শাল, চুলের ক্রিম, হেয়ার রিমুভার, সিআর কয়েল, জিপি শিট, সিআই শিট, আমদানিকৃত মধু, ওটস, প্লাস্টিক ব্যাগ, বিভিন্ন ধরনের পেপারের দাম বাড়বে।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com