সিলেটে আল হারামাইন হাসপাতালে চাকরীর নামে প্রতারনা!

প্রকাশিত: ৪:১৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৬, ২০১৮

সিলেটে আল হারামাইন হাসপাতালে চাকরীর নামে প্রতারনা!

সিলেটের এক তরুনের আল হারামাইন হাসপাতালের চাকরীর নিয়োগ নিয়ে ফেইসবুকে হৃদয়বিদারক স্ট্যাটাস।নিম্নে স্ট্যাটাসটি হুবহু দেয়া হলঃ

চাকরির নামে এ কোন প্রতারণা!
প্রসঙ্গ আল হারামাইন হাসপাতাল

২০১৬ সাল। সবে মাত্র অনার্স পাশ করেছি। রেজাল্ট ভালো হওয়ায় প্রত্যাশাও একটু বেশি ছিল। তবে সরকারি চাকরির প্রতি তেমন একটা আগ্রহ ছিল না। হঠাৎ আল হারামাইন হাসপাতালের একটা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পাই। তখন মার্চ কিংবা এপ্রিল মাস হবে হয়তো। বেশ কিছু নিয়োগ হবে। বেশ আশা নিয়েই আবেদন করলাম। কিন্তু দীর্ঘদিন কোনো সংবাদ পেলাম না। একসময় আশা হারিয়ে ফেললাম। ভাবলাম যোগ্যতায় হয়তো হয়নি। অক্টোবরের শেষের দিকে হঠাৎ হাসপাতাল কতৃপক্ষ ফোন কওে জানালেন ইন্টারভিউয়ের জন্য। আবারো আশার আলো দেখতে পেলাম। নির্দিষ্ট তারিখে দীর্ঘসময় অপেক্ষা করে ইন্টারভিউ দিলাম। কনফিডেন্ট ছিল চাকরি পাবো। সপ্তাহখানেক পরে অথ্যাৎ নভেম্বরে ফোন আসলো আমি চাকরির জন্য মনোনিত হয়েছি। মহান রবের দরবারে হাজারো শুকরিয়া জ্ঞাপন করলাম। নির্দিষ্ট দিনে হাসপাতালে গেলাম। প্রচুর লোকের সমাগম। সবার মুখেই হাসি। এদের সবাই চাকরির জন্য মনোনিত হয়েছে। একসময় আমার ডাক আসলো। ভিতরে গেলাম; বলা হলো ফেব্রুয়ারির ১ তারিখে চাকরিতে জয়েন করার কথা। জানুয়ারিতে যারা জয়েন করবে তাদের নিয়োগপত্র দেওয়া হলেও আমাদের বলা হলো জানুয়ারিতে ফোন দিয়ে নিয়োগপত্র নিতে বলা হবে।
এভাবে সময় যাচ্ছিল। চাকরিটা বেশ কয়েকটা কারণে আমার পছন্দ হলো। ভাবলাম বাসার পাশে চাকরি; মানুষের সেবা করার সুযোগ; স্বপ্নের একাউন্টিং নিয়ে কাজ। অপেক্ষার প্রহর কাটছিল না। জানুয়ারির ২৮ তারিখ আবারো ফোন আসলো। বেশ আশা নিয়ে ফোন রিসিভ করলাম। কিন্তু ওপাশে যা বললো তার জন্য মোটেই প্রস্তুত ছিলাম না। বললো মার্চের ১ তারিখ জয়েন হবে। নিরাশ হলেও শিওর হলাম আমার চাকরিটা নিশ্চিত। তখন সবাইকে বলি আমার চাকরির কথা। বাড়িতে বললে আব্বা আম্মা এলাকার সবাইকে আমার চাকরির কথা বলেন। ফেব্রুয়ারির ২৭ তারিখ আবারো ফোন। এবার আরো বড় দুঃসংবাদ। ফোন দিয়ে বলল তাদের কাজ এখনো বাকি আছে। কবে জয়েন করবো শিওর না। তারা ফোন দিয়ে জানাবে। আবারো হতাশ হয়ে পড়লাম। এই দীর্ঘসময়ে কোনো চাকরির জন্য আবেদন করিনি। একরকম হতাশায় পড়ে গেলাম। ফোন দিলাম আমার সাথে যারা জয়েন করার কথা তাদেরকে। তাদেরকেও একই কথা বলা হয়েছে। এদের মধ্যে একজন আমার বেশ পরিচিত বড় ভাই। ঐ চাকরির জন্য এখনো বেকার আছেন। আমিও দীর্ঘদিন ঐ চাকরির জন্য অপেক্ষা করেছি। বাড়িতে গেলে সবাই জিজ্ঞেস করতো। শেষ পর্যন্ত বাড়িতে যাওয়া কমিয়ে দিয়েছিলাম।
এখন বলি অন্য প্রসঙ্গে, আল হারামাইন হাসপাতালে চাকরি করেন এরকম একজন বড় ভাইয়ের সাথে কথা বলেছিলাম তিনি জানান, হাসপাতালে চাকরি না হয়ে নাকি আমার ভালো হয়েছে। বেশ অবাক হলাম! জানালেন, কিছু অভ্যন্তরিণ সমস্যার কথা। কতৃপক্ষের ইচ্ছাই এখানে সব। প্রতিনিয়ত মানুষের চাকরির স্থান পরিবর্তন হয়। ভাইস চেয়ারম্যানের ভালো না লাগলেই গালাগালি করেন। কর্মী ছাঁটাই নাকি ওখানকার নিত্যদিনের ব্যাপার। আমি বেশ অবাক হয়ে একটু খোঁজ নিলাম , যা শুনেছি তাই সত্যি।
এবার একটু ভিন্ন প্রসঙ্গে বলি। আমার খুব ঘনিষ্ট একজন হাসপাতালে চাকরির জন্য ওখানে চাকরি করে এরকম একজনের সাথে ২৫ হাজার টাকা চুক্তি করে। ৫ হাজার অগ্রীম দিতে হয়। সে নাকি ১০/১২ জনকে চাকরি দিয়েছে। ঐ চুক্তির সময় আমিও উপস্থিত ছিলাম। তবে এখনো ঐ মানুষটির চাকরি হয়নি।
গতমাসে আমার আরেকজন পরিচিত একটি পোস্টের জন্য আবেদ করে ইন্টারভিউ দিয়েছেন। উনাকে বলা হয়েছে ২/৩ দিনের মধ্যে জানানো হবে। আজ ১ সপ্তাহ হলেও কিছু জানানো হয়নি। তাদের বিরুদ্ধে প্রথম থেকে যে অভিযোগ পেয়েছি, পরিচিত বা লিংক ছাড়া কারো চাকরি হয় না ওখানে। হাসপাতালের ভাইস চেয়ারম্যান ওলিউর রহমানের ইচ্ছাই ওখানে সব। উনার পছন্দ না হলে পরদিনই ছাঁটাই। যদিও এ বিষয়গুলো দেখার জন্য হাসপাতালে এইচআরডি বিভাগ রয়েছে। এটা নামে মাত্র। এটি আসলে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে নতুন কিছু নয়। তবে চাকরি হয়েছে বলে আমার মতো তরুণের জীবন নিয়ে চিনিমিনি খেলার পারমিশান তাদেরকে কেউ দেয়নি। এভাবে হয়তো কত তরুণ অপেক্ষার প্রহর গুনছে চাকরিতে জয়েন করার জন্য। তারা হয়তো আদৌ জানে না যে কখনোই তাদের চাকরি হবে না।
আরেকটি বিষয় খেয়াল করবেন নিয়মিতভাবে তাদের চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়, এটাকে হয়তো তারা প্রচারের কৌশল হিসেবে ব্যবহার করছে। কিন্তু ইন্টারভিউ ও চাকরি দেওয়ার নাম করে অপেক্ষা করতে বলা বিষয়টা তো মেনে নেওয়া যায় না!
এখন প্রশ্ন হতে পারে কেন আমি এতো দিন পর এই বিষয়টি উত্তাপন করছি। যখন শুনলাম আমার পরিচিত ব্যক্তিটিও আমার মতো সমস্যার সম্মুখিন তাই বিষয়টি সবার সামনে আনার জন্যই মূলত বিষয়টি নিয়ে লিখলাম। মনের ভিতর জমে থাকা কষ্ট থেকেই এই লিখা। কেউ কষ্ট পেলে ক্ষমাপ্রার্থী। তবে জানামতো ১% ও মিথ্যার আশ্রয় নেইনি।

সূত্রঃ Tofael Shipu এর ফেইসবুক আইডি

আর্কাইভ

অক্টোবর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« সেপ্টেম্বর    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com