প্রচ্ছদ

লন্ডনে যুক্তরাষ্ট্রের সেই দূতাবাস কিনে নিয়েছে কাতারের রাজ পরিবার

প্রকাশিত হয়েছে : ৮:৫৭:৩৮,অপরাহ্ন ১৩ জানুয়ারি ২০১৮ | সংবাদটি ৩ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

লন্ডনের অক্সফোর্ড স্ট্রিটে অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসটি কিনে নিয়েছে কাতারের রাজ পরিবার। পুরনো এ দূতাবাসটি কাতারের রাজ পরিবারের কাছে ৩১৫ মিলিয়ন ডলারে বিক্রি করা হয়েছে। এর পেছনে আরো ১ দশমিক ৪ বিলিয়ন ডলার খরচ করে একটি পূর্ণাঙ্গ ৫ তারকা হোটেল বানানো হবে।

দূতাবাসটি বিক্রির পর টেমস নদীর তীরে নতুন দূতাবাস তৈরি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের নির্মিত নতুন দূতাবাসটি বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ও দৃষ্টিনন্দন হওয়ায় ইতিমধ্যে আলোচিত হয়েছে। আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে বর্তমান দূতাবাস ছেড়ে নতুন ভবনে উঠবেন যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকরা। খবর ডেইলি মেইলের।

এর আগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অভিযোগ করেছিলেন, অক্সফোর্ড ট্রিটের দূতাবাসটি সামান্য মূল্যে বিক্রি করা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময়ে ২০১৩ সালে কাতারের রাজ পরিবারের কাছে এটি বিক্রি করা হয়। বাজারমূল্য প্রায় ৫০০ মিলিয়ন ডলার হওয়ার পরেও সেটি ৩১৫ মিলিয়ন ডলারে বিক্রি করা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

লন্ডনের ভূমি রেজিস্ট্রেশন অফিসের বরাত দিয়ে ডেইলি মেইলে বলা হয়েছে, অক্সফোর্ড স্ট্রিটের দূতাবাসটি ৯৯৯ বছরের জন্য বিক্রি করা হয়েছে। বারাক ওবামার সময়ে এটি বিক্রি করা হলেও এর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল প্রেসিডেন্ট বুশের সময়ে। ১৯৬০ সালে যুক্তরাষ্ট্র সরকার এই দূতাবাসটি নির্মাণ করে।

বিক্রি হওয়া ভবনটিতে মোট ৯টি ফ্লোর রয়েছে। মোট জায়গার পরিমাণ ২ লাখ ২৫ হাজার বর্গফুট। এর মধ্যে কক্ষ রয়েছে ৬০০টি। ভবনটি কিনে নেয়ার পর কাতার রাজ পরিবার এটি সংস্কারের জন্য ১ দশমিট ৪ বিলিয়ন ডলার ব্যয়ের প্রস্তুতি নিয়েছে। সংস্কারের পর এটি ১৩৭ সদস্যবিশিষ্ট ৫ তারকা হোটেলে রূপ নেবে।

ইতিপূর্বে লন্ডনে অবস্থিত বিভিন্ন দেশের দূতাবাস বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি হয়েছে। ২০১৩ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়নের দূতাবাস, পরে কানাডিয়ান হাইকমিশনের ভবনও বিক্রি করা হয়।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com