রবিবার, ৩১ ডিসে ২০১৭ ১১:১২ ঘণ্টা

কিশোরগঞ্জে চিনিকল এলাকা রণক্ষেত্র, আহত-১৫

Share Button

কিশোরগঞ্জে চিনিকল এলাকা রণক্ষেত্র, আহত-১৫

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার কালিয়াচাপড়া সুগারমিলকে বেসরকারি ইকোনমিক জোন প্রতিষ্ঠাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় মিল এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

রোববার রাত ৬টা থেকে সাড়ে ৭টা পর্যন্ত চলা এ সংঘর্ষের সময় কিশোরগঞ্জ-ভৈরব মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। পুলেরঘাট ও মাইজহাটি এলাকার সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

খবর পেয়ে পাকুন্দিয়া ও কটিয়াদী থানা পুলিশের পাশাপাশি কিশোরগঞ্জ থেকে ডিবি পুলিশ গিয়ে ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় পুলিশসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, কালিয়াচাপড়া চিনিকলটি চালুর দাবিতে দীর্ঘদিন যাবত স্থানীয় লোকজনসহ মিলের বেকার হয়ে পড়া শ্রমিক-কর্মচারিরা আন্দোলন চালিয়ে আসছিলেন।

রোববার সন্ধ্যার পর ইকোনমিক জোন বিরোধী কয়েকশ’ লোক মিল এলাকায় বিক্ষোভ-মিছিল বের করলে ইকোনমিক জোনের পক্ষাবলম্বনকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, ১৯৬৫ সালে প্রতিষ্ঠিত দেশের অন্যতম প্রধান এ চিনিকলটি লোকসানের মুখে পড়ে ১৯৯৪ সালের দিকে বন্ধ হয়ে যায়। সরকার ১৯৯৭ সালে প্রাইভেটাইজেশন বোর্ডের মাধ্যমের মিলটি চিনিকল হিসাবে চালু করার শর্তে বেসরকারি খাতে ছেড়ে দেয়।

এ সময় মিলের প্রায় সাড়ে ৩ হাজার শ্রমিক-কর্মচারীসহ ৪০ হাজারের বেশি আখচাষী বেকার হয়ে পড়ে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠান নিটোল নিলয় গ্রুপ চিনিকলটির মালিকানা পেয়ে চালু না করে ইকোনমিক জোন প্রতিষ্ঠার কাজ শুরু করলে এলাকাবাসী, আখচাষী ও বেকার শ্রমিক-কর্মচারীদের সঙ্গে বিরোধ বাঁধে।

চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে এখানে বেসরকারি ইকোনমিক জোন প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিলে সরকার মিল কর্তৃপক্ষকে অনুমতিও দেয়।

চিনিকল চালু না করে গত অক্টোবর মাস থেকে এখানে ইকোনমিক জোনের সাইনবোর্ড লাগিয়ে কার্যক্রম শুরু করার ঘটনার প্রতিবাদে এলাকাবাসী, আখচাষী ও বেকার শ্রমিক-কর্মচারীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছিলেন।