শুক্রবার, ২৯ ডিসে ২০১৭ ১২:১২ ঘণ্টা

মাইকেল জ্যাকসনের মতো “মুনওয়াক’ করে গাড়ি থামান ট্রাফিক সার্জেন্ট!

Share Button

মাইকেল জ্যাকসনের মতো “মুনওয়াক’ করে গাড়ি থামান ট্রাফিক সার্জেন্ট!

এক্সক্লুসিভ ডেস্ক: রোদ-ঝড়-জল-বৃষ্টি, আবহাওয়া যেমনই থাকুক না কেন, ব্যস্ত রাস্তায় সদা জাগ্রত সাদা উর্দিধারী। তাঁর এক হাত উঠলেই সারি সারি গাড়ি চকিতে থেমে যায়। আবার ঠোঁটের কোণে ঝুলে থাকা বাঁশির আওয়াজে  প্রাণ ফিরে পায় যানেরা। এর জন্য কোনও শব্দ খরচ করতে হয় না তাঁকে। তিনি ট্রাফিক পুলিস। আমাদের তিলোত্তমা তো বটেই দেশের মেট্রো সিটিগুলির যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত হয় তাঁদের অঙ্গুলিহেলনই। তবে, ইনদওরের এক ট্রাফিক সার্জেন্ট শুধু অঙ্গুলিহেলনে নয়, গোটা অঙ্গ হেলিয়েই ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করেন। যা দেখে এমনিতেই থেমে যায় গাড়ি-ঘোড়া!

সেটা কীভাবে?
ইনদওরে রঞ্জিত সিং নামে ৩৮ বছর বয়সী এক ট্রাফিক সার্জেন্ট ‘মুনওয়াক’ স্টেপে নাকি ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করেন! ব্যস্ত রাস্তায় অত্যন্ত নিপুণভাবে ১২ বছর ধরে এই কাজটি করে আসছেন রঞ্জিত। সংবাদ সংস্থা এএফপি-কে রঞ্জিত বলেন, “মাইকেল জ্যাকসনের ভীষণ ভক্ত আমি। ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করার জন্য ১২ বছর আগে মুনওয়াক স্টেপ কপি করেছিলাম।” রাস্তার এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ‘মুন ওয়াক’ স্টেপে হাঁটাচলা করেন। শরীর, মাথা, হাতও সমান ভাবে তাল মেলায়। রঞ্জিতের এমন অদ্ভুত ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ দেখে অনেকেই গাড়ি থামিয়ে মুগ্ধ হয়ে দেখতে থাকেন। তবে রঞ্জিতের কথায়, “এই মুনওয়াক স্টেপ বেশ কাজে দিয়েছে। গাড়িগুলো এখন কথা শোনে।”

ইনদওরের রাস্তার পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াতেও সমান জনপ্রিয় এই রঞ্জিত সিং। প্রায় ২০ হাজার ফলোয়ার রয়েছে তাঁর ফেসবুক পেজে। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ‘সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ’ বার্তাও পৌঁছে দেন এই ট্রাফিক সার্জেন্ট। রঞ্জিত জানান, ট্রাফিকের এই দায়িত্ব পালন আসলে তাঁর প্যাশন। এমনকী এই কাজ করার জন্য গর্ববোধ করে তাঁর পরিবারও। তাই হয়ত রঞ্জিতের ফেসবুক প্রোফাইলের ক্যাপশন, “হৃদয় দিয়ে কর্তব্য পালনেই জীবনের সব সুখ।”-জিনিউজ