বুধবার, ০৮ নভে ২০১৭ ১১:১১ ঘণ্টা

রাশিয়ার এই যুবকের অবিশ্বাস্য কিছু দাবি, যা অবাক করেছে বিশ্বকে

Share Button

রাশিয়ার এই যুবকের অবিশ্বাস্য কিছু দাবি, যা অবাক করেছে বিশ্বকে

এক্সক্লুসিভ ডেস্ক : পৃথিবীতে জন্ম নেওয়ার আগে নাকি মঙ্গলে থাকতেন। সেখানকার প্রাণীদের বিস্তারিত বর্ণনাও দিয়েছেন রাশিয়ার যুবক ২০ বছর বয়সী বরিস্কা। রাশিয়ার এই যুবকের এমনই অবিশ্বাস্য দাবিতে অবাক বিশ্ব।

এরপর থেকেই তাকে এক প্রকার মানুষরূপী এলিয়েনই মনে করেছিলেন বিজ্ঞানীরা। এছাড়াও বেশ কিছু অবিশ্বাস্য দাবি করেছেন বরিস্কা। যা আরও অবাক করেছে বিশ্বকে।

বরিস্কার মা-বাবা জানান, ছোটবেলা থেকেই বরিস্কা মহাকাশ, গ্রহ উপগ্রহ নিয়ে একাধিক কথা বলতেন। অথচ এগুলোর কোনও কিছুই সেই বয়সে তিনি পড়েননি। এমনকী ভিনগ্রহের প্রাণী এবং সেখানকার সভ্যতা নিয়েও কথা বলতেন বরিস্কা।

মাত্র ২ বছর বয়সেই অনায়াসে লেখাপড়া করতে পারতেন তিনি। তাতে অবাক হয়ে গিয়েছিলেন চিকিৎসকরাও। সেই সাথে সাথে অবাক হয়েছেন বিজ্ঞানীরাও।

সবচেয়ে অবাক করে দিয়ে বিজ্ঞানীদের বরিস্কা বলেছিলেন, মঙ্গলগ্রহের প্রাণীরা সাধারণত সাত ফুট লম্বা হন। সেখানে এখনও প্রাণের অস্তিস্ত আছে। লালগ্রহের অভ্যন্তরে তারা বাস করেন।

অক্সিজেন নয় মঙ্গলে কার্বনডাই অক্সাইডেই চলে শ্বাসপ্রশ্বাস প্রক্রিয়া। পারমাণবিক বিপর্যয়ের কারণেই মঙ্গল গ্রহের উপরে আর প্রাণের অস্তিত্ব নেই। সেখানকার প্রাণীরা নাকি অমর এবং ৩৫ বছর হলেই তাদের বয়স থমকে যায়।

বরিস্কা আরও জানান, প্রযুক্তিগত দিক থেকে মানুষের তুলনায় অনেক বেশি আধুনিক। তারা এক নক্ষত্র থেকে অন্য নক্ষত্রে ভ্রমণ করতে পারেন। প্রাচীন মিশরের সঙ্গে মঙ্গল গ্রহের প্রাণীদের গভীর যোগসূত্র ছিল।

সে সময় মঙ্গলগ্রহের যানের চালক হিসেবে পৃথিবীতে এসেছিলেন তিনি। বরিস্কার একাধিক বক্তব্যে ধন্ধে পড়ে গিয়েছেন মহাকাশ বিজ্ঞানীরা।  আর এমন সব অদ্ভূত ও অবিশ্বাস্য দাবিতে রীতিমত হতবাক তারাও। সূত্রঃ নিউজ উইয়ার ডটকম।