রবিবার, ১৭ সেপ্টে ২০১৭ ০১:০৯ ঘণ্টা

ডেঙ্গু নির্মূলে মশার চাষ

Share Button

ডেঙ্গু নির্মূলে মশার চাষ

ডেঙ্গু নির্মূলে মশা নিধনের কথা সবাই শুনেছেন। কিন্তু মশা মারতে মশা চাষের কথা কি কেউ শুনেছেন? কোনো প্রতিষ্ঠান মশা উৎপাদন করছে এ কথা শুনলে আশ্চর্য হওয়ারই কথা। এমন ঘটনাই ঘটেছে চীনে। মশা নির্মূলের লক্ষ্যে দেশটির গোয়ানডং রাজ্যে কয়েকটি কারখানায় আধুনিক প্রযুক্তিতে মশার চাষ করা হচ্ছে এবং পরে তাদের মুক্ত পরিবেশে ছেড়ে দেয়া হচ্ছে।

চীনের এসব কারাখানাকে স্থানীয়রা মশার কারখানা নামে অভিহিত করছেন। প্রতি সপ্তাহে পরীক্ষাগারে প্রায় তিন কোটি ৪০ লাখ মশা উৎপাদন করা হচ্ছে। গবেষকদের দাবি, এ কারখানায় উৎপন্ন পুরুষজাতীয় মশারা কামড়াতে পারে না। ফল-ফুল এবং পাতার রস খেয়ে বাঁচে এরা। তবে পরীক্ষাগারে জন্ম নেয়া এ মশাগুলো এদের লালার মাধ্যমে ডেঙ্গু মশার জন্মনিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম। এদের লালার সংস্পর্শে আসার পর ডেঙ্গু মশার প্রজনন ব্যাহত হয়। এদের কারণে ডেঙ্গুর ডিম আর ফুটবে না।

গবেষকরা বলছেন, তাদের পরীক্ষাগার থেকে যে পুরুষ মশা ছাড়া হয় তাতে কোনো ক্ষতির আশঙ্কা নেই, এমনকি এগুলো কামড়ায়ও না। পরীক্ষা করে এর সফলতাও মিলেছে। এ পরীক্ষার ফলে ৯০ শতাংশ পর্যন্ত মশার জন্মনিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়েছে। গবেষকরা বলছেন, প্রতি বছর বিশ্বে ২২ হাজার মানুষ ডেঙ্গুর আক্রমণে মারা যায়। যার মধ্যে অনেক শিশুও রয়েছে। ডেঙ্গুর কোনো টিকা এখন পর্যন্ত আবিষ্কার করা সম্ভব হয়নি।

এছাড়া এ রোগের উন্নত কোনো চিকিৎসাও নেই। গবেষকরা আশা করছেন, মশা দিয়ে মশা মারার এ উদ্যোগ যদি আরও সফল হয় তবে বিশ্বের অন্য জায়গাতেও এটি ব্যবহার হতে পারে। ডেঙ্গুর পাশাপাশি চিকুনগুনিয়া ও ম্যালেরিয়া প্রতিরোধেও এই পদ্ধতি কাজে লাগানো যেতে পারে।