বৃহস্পতিবার, ২৪ আগ ২০১৭ ০১:০৮ ঘণ্টা

‘সালোয়ার এর ওপর গেঞ্জি নয়’

Share Button

‘সালোয়ার এর ওপর গেঞ্জি নয়’

হলের ভেতরে দিনের বেলা অথবা রাতের বেলা সালোয়ার এর ওপর গেঞ্জি পরে ঘোরাফেরা ও এ পোশাকে হলের কার্যালয়ে কাজের জন্যে ঢোকা যাবে না মর্মে এক নোটিশ জারি করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কবি সুফিয়া কামাল হল কর্তৃপক্ষ। এনিয়ে হলে থাকা ছাত্রী সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

নোটিশে বলা হয়েছে, হলের ভেতর দিন বা রাত হোক, কখনোই ছাত্রীদের অশালীন পোশাক (সালোয়ারের ওপর গেঞ্জি) পরা যাবে না। এ পোশাকে হলের কার্যালয়ে কোনও কাজের জন্য ঢোকা যাবে না। কেউ যদি তা করেন, তবে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে হল কর্তৃপক্ষ বিধিমোতাবেক ব্যবস্থা নেবে।

নারীর ক্ষমতায়ন ও সমতা প্রতিষ্ঠায় কাজ করা কবি সুফিয়া কামালের নামে এহলের প্রতিষ্ঠা হয় ২০১২ সালে। কার্জন হলের পাশে প্রায় সাত একর জায়গা নিয়ে গড়ে ওঠা এ হলে আবাসিক ছাত্রীরা হলে ঢোকেন ২০১৩ সালে। বর্তমানে হলের আবাসিক ছাত্রীসংখ্যা দুই হাজার এবং অনাবাসিক ছাত্রীসংখ্যা ৩ হাজার ৩০০। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হলটি উদ্বোধন করেছিলেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে হলের এক ছাত্রী হল কর্তৃপক্ষের এধরনের নোটিশকে অনাকাঙ্ক্ষিত উল্লেখ করে বলেন, প্রতিষ্ঠান নির্ধারণ করে দিতে পারে না কে কোন পোশাক পরিধান করবে। এটা উচিত হয় নি। হল প্রভোস্ট সাবিতা রেজওয়ানা রহমানের সঙ্গে যোগাযোগে তাঁর বক্তব্য নেওয়া যায় নি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এনিয়ে ব্যাপক সমালোচনা চলছে। আইনজীবী ও অনলাইন এক্টিভিস্ট রাজেশ পাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হলের আবাসিক ছাত্রীদের জন্য নোটিশের ছবি শেয়ার করে বিদ্রূপ করে লিখেছেন,ভালো তো , ভালো না?

তাঁর ওই পোস্টে অনেকেই সমালোচনা করেছেন ঢাবির রোকেয়া হলের এসিদ্ধান্তকে। গিরিশ বাড়ৈ নামের একজন লিখেন, হলের মধ্যে ও তাদের বোরকা পরে থাকা উচিত নিশ্চয়ই। অনিক ভট্টাচার্য শচিন নামের একজন লিখেন, অবশ্যই বোরকা জাতীয় পোশাক হিসেবে সকলের জন্য বাধ্যতামূলক করা সময়ের ব্যাপার।