শুক্রবার, ৩০ জুন ২০১৭ ০২:০৬ ঘণ্টা

জমিনের খুঁটি পাহাড় মানুষের বন্ধু

Share Button

জমিনের খুঁটি পাহাড় মানুষের বন্ধু

পাহাড় হল জমিনের খুঁটি। কোরআনে বলা হয়েছে, ‘তিনিই জমিনের বুকে পাহাড়গুলো গেড়ে দিয়েছেন, যাতে করে জমিন তোমাদের নিয়ে টলে না পড়ে’। (সূরা নাহল : ১৫)। পাহাড় পর্বত প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্যের অংশই নয়, প্রাণিকুলের জীবন রক্ষায় পাহাড়ের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পাহাড় কেটে বন জঙ্গল উজাড় করার ফলে পরিবেশের ওপর জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবে সঠিক সময়ে বৃষ্টি না হয়ে অসময়ে বৃষ্টিপাত হচ্ছে। মাঘ মাসের হাড় কাঁপানো শীত মৌসুমেও গরম অনুভূত হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রায়ই ভূমিকম্পন হচ্ছে। 

মানুষ যখন থেকে প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মের বিরুদ্ধে আচরণ শুরু করেছে, প্রকৃতিও তার স্বরূপে পরিবেশের সঙ্গে বৈরী আচরণ শুরু করেছে। ইরশাদ হয়েছে, ‘তিনি আসমানগুলোকে কোনো স্তম্ভ ছাড়া সৃষ্টি করেছেন, তোমরা তো তা দেখতেই পাচ্ছ তিনি জমিনে পাহাড়গুলো স্থাপন করে রেখেছেন। যাতে করে তা তোমাদের নিয়ে কখনও টলে না পড়ে, তাতে প্রত্যেক প্রকারের বিচরণশীল জন্তু তিনি ছড়িয়ে দিয়েছেন’। (সূরা লুকমান : ১০)। আঠারো হাজার মাখলুকাতের অনেক প্রাণীই পাহাড়ে বসবাস করে। পাহাড়ের গাছপালা অবাধে কেটে ধ্বংস করে ফেলায় এ দেশের অনেক বন্য পশুপাখি আজ বিলুপ্তির পথে। গাছপালা কাটার ফলে প্রাণিজগতের ভারসাম্য নষ্ট হয়ে পড়ছে। অতীতে গ্রামাঞ্চলে যেসব বন্য পশুপাখি দেখা যেত। পরিবেশের বিরূপ প্রভাবে তাদের অধিকাংশ এখন আর দেখা যায় না।

কোরআনে বলা হয়েছে, ‘তিনিই এ (জমিনের) বুকে এর ওপর থেকে পাহাড়গুলো গেড়ে দিয়েছেন ও তাতে বহুমুখী কল্যাণ রেখে দিয়েছেন এবং তাতে (সবার) আহারের পরিমাণ নির্ধারণ করে দিয়েছেন’। (সূরা হামীম আস-সাজদাহ : ১০)। মানুষ চাষাবাদ করে। বন্য পশুপাখিরা চাষাবাদ করে না। আল্লাহতায়ালা গায়েবের মাধ্যমে বন্য প্রাণীর খাবারসামগ্রী বনে জঙ্গলে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রেখেছেন। পাহাড় ধ্বংস করে ফেলার কারণে পাহাড়ের বন্য প্রাণীদের খাদ্যাভাব দেখা দিয়েছে। খাদ্যাভাবের ফলে বন্যহাতিরা খাবারের খোঁজে মাঝে মধ্যে সমতল ভূমিতে নেমে আসছে।

কোরআনে বলা হয়েছে, ‘আমি জমিনকে বিছিয়ে দিয়েছি, আমি তার মধ্যে স্থাপন করেছি মজবুত পাহাড়গুলো, আবার এ জমিনে আমি গজিয়ে দিয়েছি সব রকমের চোখ জুড়ানো উদ্ভিদ’। (সূরা ক্বাফ : ৭)। পাহাড়ের তৃণ ও গাছপালা আমাদের জীবনের বহু মূল্যবান অক্সিজেন সরবরাহ করে। মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর বিষাক্ত কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাস গ্রহণ করে বায়ুমণ্ডলকে বিশুদ্ধ রাখে। পশু, পাখি ও সাপ বিচ্ছুদের আবাসস্থল হল গাছগাছালি ও ঝোপঝাড়। গাছের মধ্যে অনেক ঔষধি গুণ রয়েছে। গাছ আমাদের সুস্বাদু ফল সরবরাহ করে। যা আমাদের অপুষ্টি দূর করে। পাহাড়ের সঙ্গে মানুষের স্বাস্থ্য ও জীবন সুরক্ষার বিষয়টি যেমন জড়িয়ে আছে। তেমনি পাহাড়ের সঙ্গে প্রকৃতির ভারসাম্য ও অন্যান্য প্রাণিকুলের জীবনের সম্পৃক্ততা রয়েছে। সুতরাং পাহাড় সংরক্ষণে সবাইকে সচেতন হতে হবে। জীবন সুরক্ষার জন্য পাহাড় সংরক্ষণ করতে হবে। নতুবা একের পর এক পাহাড়ে প্রাণহানির ঘটনা ঘটতেই থাকবে আর মানুষ মরতেই থাকবে।