মঙ্গলবার, ১৩ অক্টো ২০১৫ ১০:১০ ঘণ্টা

পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি জিএম আবুল কালামের অপসারণ দাবি : বিক্ষুব্ধ গ্রাহকদের সিলেট-তামাবিল মহাসড়ক অবরোধ

Share Button

পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি জিএম আবুল কালামের অপসারণ দাবি : বিক্ষুব্ধ গ্রাহকদের সিলেট-তামাবিল মহাসড়ক অবরোধ

জৈন্তাপুর সংবাদদাতা:
1ঘুষ-দুর্নীতির অভিযোগ এনে সিলেট পল্ল¬ী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জিএম আবুল কালাম আজাদকে অপসারনের দাবিতে সিলেট-তামাবিল মহাসড়ক ৩ ঘন্টা অবরোধ করে রাখেন বিক্ষুব্ধ গ্রাহকরা।

আন্দোলনকারীরা জানান, সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর জিএম হিসেবে আবুল কালাম আজাদ যোগদানের পর হতে সিন্ডিকেট বাহিনী তৈরী করে নানা অনিয়ম ও দুর্র্নীতির মাধ্যমে সমিতি পরিচালনা করে আসছেন। তার লাগামহীন দুর্র্নীতির দায়ে বেশ কয়েক দফা মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করে আসছে সমিতির আওয়াতাভূক্ত জৈন্তাপুর-গোয়াইনঘাট-কানাইঘাট ও কোম্পানীগঞ্জ এলাকার সর্বস্থরের গ্রাহকগন। অবশেষে জিএম অপসারন না হওয়ায় সোমবার দুপুর ২টা হতে ৫টা পর্যন্ত সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের দরবস্থ বাজারে ত্রি-মূখিতে অবরোধ করে জৈন্তাপুরের পল্ল¬ী বিদ্যুৎ গ্রাহকরা। এ ঘটনায় সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের উভয় পাশ্বে যাত্রীবাহি বাস মাইক্রোবাস, মালবাহী ট্রাক সহ ছোট-বড় সহস্রাধিক যানবাহন আটকাপড়ে যাত্রী সাধারনের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়।

এদিকে ঘটনার সংবাদে জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন, জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ খালেদুর রহমান, গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সালাহ উদ্দিন, জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সফিউল কবির এলাকাবাসী ও গ্রাহকদের সাথে আলাপ-আলোচানার মাধ্যমে বিষয়টি নিয়ে জোরালো আলোচনার হয়। এ ঘটনায় সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. জয়নাল আবেদীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা চেয়ারম্যানদের মাধ্যমে আগামী ৭ দিনের মধ্যে সিলেট হতে জিএম আবুল কালাম আজাদকে অপসারনের আশ্বাস দিলে পল্ল¬ী বিদ্যুৎ গ্রাহক ও এলাকাবাসী তাদের অবরোধ তুলে নেন।

এঘটনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. খালেদুর রহমান বলেন, ঘুষ-দুর্নীতির অভিযোগ এনে গ্রাহকরা সিলেট-তামাবিল মহাসড়ক প্রায় ৩ঘন্টা রাস্তা অবরোধ করে রাখে। আমাদের সহযোগীতায় জেলা প্রশাসক মহোদয়ের আশ্বাসের ভিত্তিতে গ্রাহকরা রাস্তা থেকে অবরোধ তুলে নেন।