প্রচ্ছদ

ইশতেহারে চা শ্রমিকদের ১১ দফা অন্তর্ভুক্তির দাবি

প্রকাশিত হয়েছে : ১:১৭:১৩,অপরাহ্ন ০৫ নভেম্বর ২০১৮ | সংবাদটি ১১ বার পঠিত

সিলেটেরকন্ঠডটকম

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে তাদের নির্বাচনী ইশতেহারে চা বাগানের মানুষের ১১ দফা দাবি অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (৪ নভেম্বর) সকাল ১১টায় উপজেলার শমশেরনগর চা বাগানে জাগরণ যুব ফোরামের আয়োজনে এ সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। সংলাপের শুরুতেই লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জাগরণ যুব ফোরামের সভাপতি মোহন রবিদাস।

লিখিত বক্তব্যে মোহন রবিদাস বলেন, আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে তাদের নির্বাচনী ইশতেহারে চা শ্রমিকদের বকেয়া বোনাসসহ দৈনিক মজুরী ৩০০ টাকায় উন্নীত, রাষ্ট্র পরিচালনার প্রতিটি ক্ষেত্রে চা শ্রমিকদের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত, পূর্বের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী চা শ্রমিকদের ভূমি অধিকার নিশ্চিত, শিক্ষা ও চাকুরী ক্ষেত্রে বিশেষ কোটা, চা বাগানে বসবাসরত সকল জনগোষ্ঠীকে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর তালিকায় অন্তর্ভুক্ত, ঐতিহ্য রক্ষায় কালচারাল একাডেমি প্রতিষ্ঠা, সকল চা বাগানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উচ্চ বিদ্যালয় এবং সকল ভ্যালীতে টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ প্রতিষ্ঠা, জাতীয় বাজেটে চা জনগোষ্ঠীর জন্য পর্যাপ্ত বরাদ্দ রাখা, চা বাগানের বিদ্যমান সমস্যা সমাধানে একটি কমিশন বা মন্ত্রণালয় গঠন, প্রতিটি ভ্যালীতে কমপক্ষে ১৫০ শয্যাবিশিষ্ট সরকারি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করা ও চা বাগানের ছাত্র-ছাত্রীদের কারিগরি প্রশিক্ষণসহ বিশেষ বৃত্তির ব্যবস্থা করার জন্য জোর দাবী জানানো হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শমশেরনগর চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি নৃপেন্দ্র বাউরী, সম্পাদক শ্রীকান্ত কানু, মাসিক চা মজদুর সম্পাদক সীতারাম বীন,  স্থানীয় ইউপি সদস্য ইয়াকুব আলী, নারীনেত্রী লছমী রাজভর, সমাজসেবক মিখাইল পিরেগু, চা ছাত্র যুব পরিষদ নেতা গোপাল মাদ্রাজি, শুকলাল রবিদাস প্রমুখ।

সংলাপে বক্তারা বলেন, চা শ্রমিকরা বাংলাদেশের নাগরিক হয়েও পর্যাপ্ত নাগরিক সুবিধা পাচ্ছে না। রাষ্ট্র ও সমাজ জীবনের সর্বক্ষেত্রে সমান অধিকার নিশ্চিতের দাবী জানানো হয়।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com