প্রচ্ছদ

বিদ্যুতের উৎপাদন ছয় গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত হয়েছে : ৬:৩০:৩১,অপরাহ্ন ১৯ অক্টোবর ২০১৮ | সংবাদটি ৭ বার পঠিত

সিলেটেরকন্ঠডটকম

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ‘আগামী পাঁচ বছর সরকারের ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে দারিদ্র্যতার হার ১০ শতাংশের নিচে নেমে আসবে।’

তিনি বলেন, ‘১৯৯১ সালে দেশে দারিদ্র্যতার হার ছিল ৫৮ শতাংশ। বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগে এখন তা কমে ২২ দশমিক ৩ শতাংশে নেমে এসেছে।’

শুক্রবার সকালে সিলেট সদর উপজেলা পরিষদ মাঠে ‘একটি বাড়ি, একটি খামার প্রকল্প’, ‘পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের সুবিধাভোগীদের সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এর আগে তিনি সদর উপজেলার ৫টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ৭টি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, ‘১০ শতাংশ যারা দরিদ্র থাকবেন তাদের মধ্যে শারীরিক প্রতিবন্ধী, বাক-শ্রবণ প্রতিবন্ধী, বিধবাসহ বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ। যাদের সামাজিক নিরাপত্তাবেষ্টনীর আওতায় সব ধরনের সহযোগিতা দেয়া হচ্ছে এবং ভবিষ্যতেও তা অব্যাহত থাকবে। উন্নত দেশগুলোতে এ রকম ব্যবস্থা রয়েছে।’

মুহিত বলেন, ‘বাংলাদেশে এখন ঝুপড়ি নেই। আলোর ঝলমলের দেশ। বাংলাদেশ যতটুকু উজ্জ্বল হয়েছে সেটাকে অন্ধকার করা যাবে না।’

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের শুরু থেকেই বিদ্যুৎ নিয়ে অনেক বেশি চিন্তাভাবনা ছিল। এটা নিয়ে সরকার বেশি কাজ করেছে। আমরা শতভাগ সফল হয়েছি।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বিদ্যুতের উৎপাদন ছয় গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে সারা দেশে এখন বিদ্যুতের সংকট নেই। পুরো দেশ বিদ্যুতের আলোয় ঝলমল করছে। মানুষের জীবনমান এখন উন্নয়ন হয়েছে। ফলে উৎপাদনও বেড়েছে।

তিনি বলেন, সর্বত্র মানুষের মঙ্গলের সুযোগ করে দিতে শেখ হাসিনার সরকার কাজ করছে। বিগত ১০ বছরে শেখ হাসিনা ঘোষিত সরকারের লক্ষ্যমাত্রা অনেকাংশে পূরণ হয়েছে। অবশিষ্ট কাজগুলো পূরণ করতে এবং সরকারের উন্নয়ন ও জনবান্ধব উদ্যোগকে আরো ত্বরান্বিত করতে জনগণের ঐক্য ও সহযোগিতা প্রয়োজন।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিরাজাম মুনিরার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত ড. এ কে আব্দুল মোমেন, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প পরিচালক ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আকবর হোসেন, সিলেট সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ বক্তব্য রাখেন।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com