প্রচ্ছদ

বিশ্বনাথে ধানক্ষেত থেকে কৃষকের লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত হয়েছে : ৮:৪৯:৩৯,অপরাহ্ন ১০ অক্টোবর ২০১৮ | সংবাদটি ২৪ বার পঠিত

সিলেটেরকন্ঠডটকম

সিলেটের বিশ্বনাথে বাড়ির পার্শ্ববর্তী চলধণী হাওরের ধানক্ষেত থেকে ইউছুফ আলী (৬৫) নামের এক হতভাগা কৃষকের লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। ইউছুফ আলী উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের শিক্ষারগাঁও (সিক্কা) গ্রামের মৃত মন্তাজ আলীর ছেলে।

বুধবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে সিলেটের ওসমানীনগর সার্কেল এএসপি সাইফুল ইসলাম, ওসি শামসুদ্দোহার উপস্থিতিতে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্যে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

আগেরদিন মঙ্গলবার প্রতিপক্ষ আপন ছোটভাই মুক্তার আলীর স্ত্রী জোনাকি বেগমের দায়ের করা মামলার ঘটনাস্থলে তদন্তে যান এসআই নবী হুসেন। তদন্ত শেষে পুলিশ চলে গেলে মাগরিবের নামাজ আদায় করে বাড়ি থেকে বের হন ইউছুফ আলী। কিন্তু বাড়ির পেছনে গোয়ালার পার্শ্বে জুতা পাওয়া গেলেও সারারাত তার আর কোন খোঁজ পাননি তার স্ত্রী সাহারুন নেছা। বুধবার সকালে ছেলে সুয়েবকে নিয়ে স্বামী হারানো ডায়েরী করতে থানায় যান সাহারুন। কিন্তু থানায় ঢুকার আগেই খবর পান তার স্বামীর লাশ বাড়ির পাশে ধান ক্ষেতে পাওয়া গেছে। সাহারুন নেছার দাবি গোয়ালা থেকে তুলে নিয়ে তার স্বামীকে কেউ হত্যা করেছে।

ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা গেছে, বাড়ির জায়গা নিয়ে ভাইয়ে ভাইয়ে বিরোধ দীর্ঘদিনের। ৫ ভাইয়ের মধ্যে নিহত ইউছুফ আলী ও মুছন আলীর বিপক্ষে রয়েছেন ইছবর আলী, উস্তার আলী ও মুক্তার আলী। গত শনিবার সকালে মুছন আলী ও মুক্তার আলীর মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গত গত ৮ অক্টোবর মুক্তার আলীর স্ত্রী জোনাকি বেগম বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন, মামলা নং (৩)। কিন্তু জোনাকি বেগমের দায়ের করা ওই মামলায় তার ভাসুর নিহত ইউছুফ আলীকে আসামি করা হয়নি। তার স্ত্রী সাহারুন নেছা, তার অপর ভাই মুছন আলীসহ ৪জনের নাম উল্লেখ করা হয়। তবে, এলাকাবাসীর ধারণা পুলিশের ভয়ে পালানোর জন্যে বাড়ি থেকে বের হলে ধানক্ষেতে নিয়ে কেউ থাকে হত্যা করেছে।

এ প্রসঙ্গে ওসমানীনগর সার্কেল এএসপি সাইফুল ইসলাম বলেন, মাথায় আঘাতের চিহ্ন থাকায় প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে তাকে হত্যা করা হয়েছে।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com