প্রচ্ছদ

ভারতের সাত রাজ্যে বন্যা, নিহত ৭৭৪

প্রকাশিত হয়েছে : ৩:৫৫:৩৯,অপরাহ্ন ১৪ আগস্ট ২০১৮ | সংবাদটি ২৭ বার পঠিত

সিলেটেরকন্ঠডটকম

ভারতের সাত রাজ্যে চলতি বর্ষা মৌসুমে ভয়াবহ অতিবৃষ্টি ও বন্যায় অন্তত ৭৭৪ জন নিহত হয়েছেন। সোমবার ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জাতীয় জরুরি তৎপরতা কেন্দ্রের (এনইআরসি) তথ্য মতে, বর্ষা মৌসুমে বন্যা ও বৃষ্টিতে কেরালা রাজ্যে ১৮৭ জন, উত্তরপ্রদেশে ১৭১, পশ্চিমবঙ্গে ১৭০, মহারাষ্ট্রে ১৩৯, গুজরাটে ৫২, আসামে ৪৫ ও নাগাল্যান্ডে আটজন নিহত হয়েছেন।

কেরালা রাজ্যে শত বছরের মধ্যে ভয়াবহ বন্যা হয়েছে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

মৌসুমি বৃষ্টিপাতে সৃষ্ট বন্যায় অন্তত ২৭ জন নিখোঁজ রয়েছেন। যার মধ্যে কেরালায় ২২ ও পশ্চিমবঙ্গে পাঁচজন রয়েছেন। তাছাড়া বন্যা-বৃষ্টিজনিত ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ২৪৫ জন। মহারাষ্ট্রের ২৬টি, আসামের ২৩, পশ্চিমবঙ্গের ২২, কেরালার ১৪, উত্তরপ্রদেশের ১২, নাগাল্যান্ডের ১১ ও গুজরাটের ১০টি জেলা বন্যায় আক্রান্ত হয়েছে।

আসামে ১১ লাখ ৪৫ হাজার লোক বন্যা-বৃষ্টিতে আক্রান্ত হয়েছেন। ওই রাজ্যের ২৭ হাজার ৫৫২ হেক্টর আবাদি জমি নষ্ট হয়েছে। আসামে সব মিলিয়ে ১৫টি জাতীয় দুর্যোগ তৎপরতা বাহিনী (এনডিআরএফ) দল উদ্ধার ও ত্রাণ কার্যক্রম চালাচ্ছে, যার প্রতি দলে রয়েছে ৪৫ জন।

উত্তরপ্রদেশে আটটি, পশ্চিমবঙ্গে আটটি, গুজরাটে সাতটি, কেরালায় চারটি এবং মহারাষ্ট্র ও নাগাল্যান্ডে একটি করে এনডিআরএফ দল উদ্ধার ও ত্রাণ কার্যক্রম চালাচ্ছে। ভারতের আবহাওয়া অফিস সামনের দিনগুলোতে ১৬টি রাজ্যে সতর্কতা জারি করেছে। যার মধ্যে উত্তরপ্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, কেরালা, কর্নাটক, তামিলনাড়ু, পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, নাগাল্যান্ড ও অরুণাচল প্রদেশ রয়েছে।

এদিকে টানা ৬ দিনের বৃষ্টিপাতে কেরালায় ১৯২৪ সালের পর ভয়াবহ বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। গত ৮ আগস্ট থেকে শুরু হওয়া এ বন্যায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮৬ জনে। রাজ্য মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে টুইটারে বলা হয়, এ বন্যায় প্রায় ৮ হাজার ৩১৬ কোটি রুপি ক্ষতি হয়েছে।

বন্যায় ১০ হাজার কিলোমিটার রাস্তা নষ্ট হয়ে গেছে। আবহাওয়া বিভাগ ভারতের স্বাধীনতা দিবস ১৫ আগস্ট পর্যন্ত ভারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দিয়েছে।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com