প্রচ্ছদ

ভৈরবে ভাগবাটোয়ারা নিয়ে এক ছিনতাইকারীর হাতে অন্য ছিনতাইকারী নিহত

প্রকাশিত হয়েছে : ৮:৪৭:৫৪,অপরাহ্ন ১৩ আগস্ট ২০১৮ | সংবাদটি ৩৫ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

ভৈরবে ছিনতাইয়ের মালামাল ভাগাভাগি করতে গিয়ে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে আরেক ছিনতাইকারী নিহত হয়েছে। এ সময় চারজন শিক্ষার্থী আহত হয়।

নিহত বাপ্পি ভৈরব পৌর শহরের আমলাপাড়া এলাকার মোবারক মিয়ার ছেলে। নিহত ছিনতাইকারীর বিরুদ্ধে ভৈরব থানায় হত্যা মামলাসহ একাধিক ছিনতাই মামলা রয়েছে।

আহত শিক্ষার্থীরা হলো উপজেলার জামালপুর গ্রামের জিল্লুর রহমানের মেয়ে জাফরিন বেগম (১৬), তার বড় ভাই আরিফুর রহমান (২০) একই গ্রামের গোলাপ মিয়ার মেয়ে তানজিনা বেগম ( ১৫), ছনছাড়া গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে সাগর (১৭)। আহতদের মধ্যে গুরুতর আহত আরিফুর রহমানকে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার দুপুর আড়াইটায় ভৈরব মেঘনা রেলওয়ে সেতুসংলগ্ন রেললাইনের কাছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত ছিনতাইকারীর লাশ উদ্ধার করে রেলওয়ে থানায় নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় রেলওয়ে থানায় পৃথকভাবে দুটি মামলা মামলা হয়েছে।

জানা যায়, সোমবার দুপুরে উল্লিখিত চারজন শিক্ষার্থী তাদের বাড়ি থেকে ভৈরব মেঘনাপাড়ে বেড়াতে আসে। নদীর পাড়ে তারা ঘোরাফেরা করার পর রেলওয়ের নির্মিত নতুন সেতু দেখতে রেললাইনের ওপরে ওঠে। এ সময় শিক্ষার্থীদের দেখে ৫-৬ জন ছিনতাইকারী তাদের পথ গতিরোধ করে। একপর্যায়ে ছিনতাইকারীরা তাদের গলায় ছুরি ধরে স্বর্ণের চেইন ও ৩টি মোবাইল এবং ১ হাজার ২০০ টাকা নিয়ে যায়। ঘটনার সময় শিক্ষার্থী আরিফুল বাধা দিলে ছিনতাইকারীরা তাকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে এবং সঙ্গে থাকা তিনজনকেও আহত করে।

এরপর ছিনতাইকারী চেইন এবং দামি মোবাইল কে নেবে এই নিয়ে তাদের (ছিনতাইকারীরা) মধ্যে ঝগড়া শুরু হয় বলে জানান শিক্ষার্থীরা। এ সময় বাপ্পী (ছিনতাইকারী) গলার চেইনটি জোর করে নিতে চাইলে সঙ্গীরা ( ছিনতাইকারীরা) তাকে গলায় ছুরিকাঘাত করে মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়। ছুরিকাঘাতে ঘটনাস্থলেই সে নিহত হয়। পরে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে এসে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সব ঘটনা শোনে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে।

আহত শিক্ষার্থী জাফরিন বেগম ও সাগর জানান, আমরা বাড়ি থেকে ভৈরব মেঘনাপাড়ে ঘুরতে এসেছিলাম। ঘটনার সময় রেললাইনের ওপরে ওঠলে ছিনতাইকারীরা আমাদের ওপর আক্রমণ করলে এই ঘটনা ঘটে।

ভৈরব রেলওয়ে থানার ওসি আবদুল মজিদ জানান, ছিনতাইয়ের মালামাল ভাগাভাগি করতে গিয়ে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

তিনি বলেন, নিহত বাপ্পি এলাকার চিহ্নিত ছিনতাইকারী। তার বিরুদ্ধে ভৈরব থানায় একটি হত্যা মামলাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। এ ব্যাপারে পৃথকভাবে থানায় দুটি মামলা হয়েছে। ঘটনা তদন্ত করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com