প্রচ্ছদ

ঋণের দায় থেকে বাঁচতেই দোকানে আগুন দেন মুক্তিযোদ্ধা গলির ব্যবসায়ী

প্রকাশিত হয়েছে : ১:৫১:১৬,অপরাহ্ন ১২ জুন ২০১৮ | সংবাদটি ৪ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিজেকে ঋণের দায় থেকে বাঁচাতে গিয়ে নিজেরই দোকানে আগুন লাগিয়ে অবশেষে ধরা খেলেন সিলেট নগরীর জিন্দাবাজারস্থ মুক্তিযোদ্ধা গলির নাজমুল হাসান নামে এক ছাপাখানার ব্যবসায়ী। গত শনিবার (৯ জুন) ব্যবসায়ী নাজমুল হাসানের দেয়া আগুনে পুড়েছে তার ছাপাখানার পাশের আরো দুইটি দোকান।

ঘটনার দুই দিন পর মার্কেটের অন্য ব্যবসায়ীদের জেরার মুখে ধরা পড়ে পুলিশ এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে নিজের মুখেই স্বীকার করলেন আগুন লাগানোর কারণ এবং পুরো ঘটনা।

এদিকে পরিকল্পিতভাবে আগুন লাগানোর ঘটনা সোমবার সকালে ফাঁস হওয়ায় পররেই বিকেলে ব্যবসায়ী নাজমুল হাসানকে আটক করে পুলিশে দেয়া হয়।

নাজমুল হাসানের বাড়ি ঢাকার দোহারে। তার বাবার নাম ওমর আলী। তিনি দীর্ঘদিন ধরে সিলেট সদর উপজেলার পীরবাজার টিকরপাড়ায় বসবাস করছিলেন।

এর আগে গত শনিবার সকাল ৭টার দিকে জিন্দাবাজারস্থ মুক্তিযোদ্ধা গলিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার আগে সুমাইয়া প্রিন্টিং প্রেস, আর আর প্রিন্টিং ও তাজিম অফসেট প্রিন্টিং পুড়ে যা। এতে প্রায় চল্লিশ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়।

আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা ফয়জুর রহমানও বলেছিলেন- বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে এ আগুনের সূত্রপাত। কিন্তু না! ফায়ার সার্ভিসের এ কথায় আস্থা রাখতে পারেন নি ব্যবসায়ীরা। তারা নিজেরাই খুঁজতে শুরু করলেন আগুন লাগার কারণ। এদিকে নাজমুল হাসানের গতিবিধি সন্দেহজনক হওয়ায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন ব্যবসায়ীরা। একপর্যায়ে নাজমুল আগুন লাগানোর কথা স্বীকারও করেন।

সকালে জিন্দাবাজারের মুক্তি গলিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত চলাকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উম্মে সালিক রুমাইয়া ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এম সাজ্জাদুল হাসানের হাতে তাকে তুলে দিলে সেখানেও নাজমুল হাসান আগুন লাগানোর ঘটনা স্বীকার করেন।

পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উম্মে সালিক রুমাইয়া ও এম সাজ্জাদুল হাসানের উপস্থিতিতে নাজমুল হাসানকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।

মুক্তিযোদ্ধা গলি ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মেহেদি কাবুল জানান, নাজমুল হাসান বিভিন্নজনের কাছে বিপুল অঙ্কের টাকা ঋণগ্রস্ত ছিলেন। ঋণের দেনা থেকে মুক্তি পেতে তার মালিকানাধীন সুমাইয়া প্রিন্টিং প্রেসে আগুন লাগান তিনি। তাকে আটক করে থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। নাজমুল হাসানের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

নগরীর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশাররফ হোসেন জানান, ব্যবসায়ী নাজমুল হাসানকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com