প্রচ্ছদ

ওসমানীনগরে ১০ দিনেও ধরা পড়েনি বখাটে আসাদ

প্রকাশিত হয়েছে : ১১:৫৪:১০,অপরাহ্ন ১৭ এপ্রিল ২০১৮ | সংবাদটি 0 বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

সিলেটের ওসমানীনগরে ছাত্রীদের উত্ত্যক্তে বাাধা দেয়ায় উপজেলার ওসমানীনগর একাডেমির শিক্ষক সৈয়দ আহমদ আরিফের ওপর হামলাকারী বখাটে আসাদুর রহমান(২৩) ১০দিনেও ধরা পড়েনি।

আহত শিক্ষক আরিফ অভিযোগ করেন, বখাটে আসাদের উপর মামলা করায় তার স্বজনরা ক্ষিপ্ত হয়ে বিষয়টি অন্যখাতে প্রবাহিত করার পায়তারার পাশাপাশি পুলিশ কেন মামলা রেকর্ড করল সে বিষয়েও দেখে নেয়ার হুমকি ধামকি দিচ্ছে। ঘটনার ১০ দিন পার হয়ে গেলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত আসাদকে গ্রেপ্তারর করতে পারেনি।

জানা যায়, উপজেলার উমরপুর ইউপির বড় ইসবপুরস্থ ওসমানীনগর ইসলামিক একাডেমির ছাত্রীরা একাডেমিতে আসার যাওয়ার পথে বেশ কিছু দিন ধরে উপজেলার একই ইউপির বড় ইসবপুর গ্রামের মৃত মরম আলীর ছেলে আসাদুর রহামন উত্ত্যক্ত করে আসছিল। বিষয়টি একাডেমির শিক্ষক উপজেলার সাদিপুর ইউপির উত্তর কালনিচর গ্রামের সমছু মিয়ার ছেলে সৈয়দ আহমদ আরিফের নজরে পরে। শিক্ষক আরিফ উত্ত্যক্তকারী আসাদকে ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত না করতে বাধা নিষেধ ক ও আসাদের অভিবাবকদের নিকট নালিশ দেন। এতে আসাদ ক্ষিপ্ত হয়ে শিক্ষ আরিফ সহ অন্যান্য শিক্ষকদের প্রাণ নাশের হুমকি প্রর্দশন করে।

গত ৭ এপ্রিল বিকেল ৫টার দিকে একাডেমি থেকে বাড়ি ফেরার পথে বড় ইসবপুর জামে মসজিদের নিকট পৌছামাত্র দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত আসাদ ও অজ্ঞাতনামা ২/৩জন সহযোগী শিক্ষক আরিফের উপর হামলা চালিয়ে গুরুতর জখম করে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা শিক্ষক আরিফকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এব্যাপারে শিক্ষক সৈয়দ আহমদ আরিফ বাদী হয়ে আসাদুর রহমানকে প্রধান আসামী সহ আরো ২/৩জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে ওসমানীনগর থানায় একটি(মামলা নং-০৯) দায়ের করেন। ঘটনার ১০ দিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও বখাটে আসাদুরকে এখন পুলিশ এখনও পর্যন্ত গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

ওসমানীনগর থানার ওসি মোহাম্মদ সহিদ উল্যা বলেন, শিক্ষকের উপর হামলার মামলার প্রধান আসামি পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেপ্তার করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। যে কোনো সময় সে পুলিশের খাঁচায় ধরা পরবে।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com