প্রচ্ছদ

ভুয়া ফেসবুক আইডিতে অপপ্রচার, বিশ্বনাথে ৫৭ ধারায় অভিযুক্ত তিন ভাই

প্রকাশিত হয়েছে : ৭:৩৩:৩৬,অপরাহ্ন ১৬ এপ্রিল ২০১৮ | সংবাদটি 0 বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আবুল কালামকে ফাঁসাতে গিয়ে তাঁর নামে ভূয়া ফেসবুক আইডি খোলে ২০১৫ সাল থেকে অনলাইনে কটূক্তি ও বিকৃত ছবি পোস্ট করা হচ্ছে। বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গের ছবি বিকৃত করে তা টাইমলাইনে পোস্ট করা হয়। শুধু তাই নয় এদের কাছ থেকে রেহাই পাননি দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও। অশালীন ছবি পোস্ট করে টাইমলাইনে স্ট্যাটাস দেয়ার অভিযোগ এনে এবার ৩ ভাইকে অভিযুক্ত করে ৫৭ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৩ এপ্রিল) ঢাকার সুপ্রিম কোর্টের সাইবার ট্রাইব্যুনাল’র (বাংলাদেশ) বিচারক মো. সাইফুল ইসলামের নির্দেশে ৫৭ ধারায় দায়েরকৃত এ মামলাটি বিশ্বনাথ থানায় এফআইআর হিসাবে গণ্য করা হয়েছে, (মামলা নং ৯)।

এর আগে ৫ এপ্রিল ঢাকার সুপ্রিম কোর্টের সাইবার ট্রাইব্যুনালে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন-২০০৬ (সংশোধিত-১৩) এর ৫৭ ধারায় এ মামলাটি দায়ের করেন আওয়ামী লীগ নেতা উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের মীরগাঁওয়ের বাসিন্দা আবুল কালাম (সাইবার ট্রাইব্যুনাল পিটিশন মামলা নং ৪৬/১৮ইং)।

মামলায় অভিযুক্তরা হলেন, মিরেরগাঁওয়ের আব্দুল মতলিবের ছেলে আলতাউর রহমান ওরফে আতাবুর, তাঁর চাচা আব্দুর রশিদের ছেলে আতিকুর রহমান ও মুজিবুর রহমান।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্বনাথ থানার ওসি শামসুদ্দোহা পিপিএম এ প্রতিবেদককে বলেন, আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০১৫ সালে আবুল কালামের নাম ও ছবি ব্যবহার করে একটি ভুয়া ফেসবুক আইডি খোলা হয়। নিজের আইডিতে স্ট্যাটাস দিয়ে বারবার ব্যবহারকারীকে সতর্ক ও সনাক্ত করার চেষ্টা করেও তিনি ব্যর্থ হন। কিছু দিন পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ একাধিক ব্যক্তিবর্গের ছবি বিকৃত করে মানহানিকর স্ট্যাটাস ও অশ্লীল ছবি পোস্ট করা হয়।

উল্লেখ্য, ১ মার্চ আবুল কালাম মামলা দায়ের করতে গেলে থানা কর্তৃপক্ষ মামলা নেননি। তবে থানায় সাধারণ ডায়েরি (ডায়েরী নং-৫৫) নেয়া হয়। পরবর্তীতে ১৩ মার্চ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ দেন কালাম, কিন্তু কোন প্রতিকার পাননি। অবশেষে সুপ্রিম কোর্ট সাইবার ট্রাইব্যুনালে পিটিশন মামলা দায়ের করেন তিনি।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com