প্রচ্ছদ

ভারতে ৫ ‘ধর্মীয় বাবাকে’ মন্ত্রী পদমর্যাদা, সমালোচনা

প্রকাশিত হয়েছে : ১১:৪২:৪৫,অপরাহ্ন ০৪ এপ্রিল ২০১৮ | সংবাদটি ১০ বার পঠিত

সিলেটেরকন্ঠডটকম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

ভারতের মধ্য প্রদেশে পাঁচ ধর্মীয় ‘বাবা’কে (গুরু) মন্ত্রী পদমর্যাদা দিয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার। এ নিয়ে বইছে সমালোচনার ঝড়। বিরোধী দল কংগ্রেস একে চলতি বছরে রাজ্যের নির্বাচনকে সামনে রেখে ‘ভোটের রাজনীতি’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে।

মন্ত্রীর পদমর্যাদা পাওয়া এই পাঁচ ধর্মীয় নেতা হলেন- নর্মাদানান্দ মহারাজ, হরিহরণানন্দ মহারাজা, কম্পিউটার বাবা, ভাইয়্যু মহারাজ ও পণ্ডিত যোগেন্দ্র মহন্ত।

বিজেপি সরকারের এক কর্মকর্তা সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন, নর্মাদা নদী সংরক্ষণে গঠিত একটি কমিটির সদস্য হিসেবে তারা এ পদমর্যাদা ভোগ করবেন।

তবে রাজ্যের বিরোধী দল কংগ্রেস বিজেপির এ পদক্ষেপকে প্রধানমন্ত্রী শিভরাজ সিং চৌহান সরকারের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল ও বাবাদের শিষ্যদের মন জয়ে ‘প্রতারণা’ বলে অভিহিত করেছে।

রাজ্য কংগ্রেসের মুখপাত্র পঙ্কজ চতুর্বেদি বলেন, ‘এটি প্রধানমন্ত্রীর নিজের পাপ ধুয়ে-মুছে ফেলার প্রচেষ্টা। তিনি নর্মাদার সংরক্ষণকে উপেক্ষা করেছিলেন।’

কংগ্রেসের মুখপাত্র বলেন, ‘নদী রক্ষা কমিটির এই পাঁচ সদস্যের উচিত হবে- যেমনটি প্রধানমন্ত্রী দাবি করেছেন, রাজ্য সরকার নদীর তীর ঘেঁষে ছয় কোটি চারাগাছ রোপণ করেছে কি না, সেটি খুঁজে বের করা।’

রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র রাজনিশ আগরওয়াল কংগ্রেসের এই সমালোচনা প্রত্যাখ্যান করে বলেছেন, ‘বিরোধী দল ধর্মীয় নেতাদের সংশ্লিষ্ট সবকিছুই অপছন্দ করে। এই ধর্মীয় নেতাদের মন্ত্রীর মর্যাদা এজন্য দেওয়া হয়েছে যেন তারা নদী রক্ষার কাজ সহজে করতে পারেন। নর্মাদা রক্ষায় জনসাধারণের সম্পৃক্তি নিশ্চিত করতেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।’

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com