প্রচ্ছদ

আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিদেশিদের কাছে নালিশ করছে বিএনপি

প্রকাশিত হয়েছে : ৮:৩৭:১২,অপরাহ্ন ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | সংবাদটি ২ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপি আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিদেশিদের কাছে নালিশ করছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আন্দোলন এ বছর না আরেক বছর এভাবে ৯ বছর পার করেছে বিএনপি। বিএনপির মরা গাঙে আর কোনোদিন জোয়ার আসবে না।

বুধবার বেলা ১১টায় ধুলট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ধামরাইয়ের বংশী নদীর ওপর নির্মিত ধুলট-পাড়াগ্রাম ব্রিজ ও ধামরাই-মির্জাপুর পাকা সড়কের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা (বিএনপি) বুঝতে পেরেছে জনগণ তার পাশে নেই। তাই তারা বিদেশিদের কাছে নিজের সাফাই গাইছেন।

তিনি বলেন, দুর্নীতির দায়ে খালেদা জিয়াকে আদালত দোষী সাব্যস্ত করে জেলে পাঠিয়েছেন। এতে আওয়ামী লীগের কোনো হাত নেই। আদালত ইচ্ছা করলে তাকে আবার জেল থেকে মুক্তিও দিতে পারে। এটা আদালতের এখতিয়ার। আওয়ামী লীগ এসব নিয়ে ভাবে না। আওয়ামী লীগ দেশ ও দেশের জনগণ নিয়ে ভাবে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ফান্ডের দুর্নীতি মামলা দায়ের করেছেন ফখরুদ্দিন সরকার, আওয়ামী লীগ নয়। তখন আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় ছিল না। আওয়ামী লীগকে দোষারোপ করবেন না। ঢাকায় বসে আর ভাঙা রেকর্ড বাজাবেন না। জনগণ আপনাদের আর বিশ্বাস করে না।

তিনি বলেন, ধামরাইবাসী বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করেছে।জাতীয় পর্যায়েও দেশবাসী বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করেছে। তাই বিএনপির ধ্বংসের জন্য আওয়ামী লীগের প্রয়োজন নেই তাদের অভ্যন্তরীণ কোন্দলই যথেষ্ট। এছাড়া তারেক রহমানের মতো নেতা থাকলে আর কারও দরকার হয় না।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন,জনগণ আপনাদের ভোট দিয়ে জনপ্রতিনিধি বানিয়ে খুশি করেছে। এখন আপনারা ভালো আচরণ ও উন্নয়ন করে তাদের খুশি করুন। তাহলে বারবার নির্বাচিত হতে পারবেন। কোনোভাবেই মানুষের বিরাগভাজন হবেন না। তাহলে বিএনপির মতো ছিটকে পড়ে যাবেন।

তিনি বলেন, ক্ষমতার দাপট দেখাবেন না। জনগণের ভালোবাসা অর্জন করুন। ব্যানার,ফেস্টুন,বিলবোর্ড ও মোটরসাইকেল মহড়া দিয়ে কোনো লাভ নেই জনগণের হৃদয়ে নাম লেখান তাহলে ভবিষ্যতেও ভালো থাকবেন। চিরদিন কারও ক্ষমতা থাকে না। একদিন ক্ষমতা থাকবে না। সেদিন যেন মানুষের মাঝে থাকতে পারেন। বিএনপির নেতাকর্মীদের মতো যেন ঘর ও দেশ ছেড়ে পালাতে না হয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন অত্যাসন্ন, দলকে সুসংগঠিত করুন। সদস্য সংগ্রহ করতে হবে। দু’চারজন সদস্য সংগ্রহ করে দায়িত্ব শেষ হবে না। ঘরে ঘরে গিয়ে সদস্য সংগ্রহ করতে হবে। এখনই পোলিং এজেন্ট নিয়োগ ও তাদের প্রশিক্ষণ দিতে হবে। অনেক নেতা আছে শুধু নির্বাচন এলে বসন্তের কোকিলের মতো নির্বাচনী এলাকায় এসে হাজির হন। আবার নির্বাচন গেলেই এলাকা ছেড়ে চলে যান। এ বসন্তের কোকিল হয়ে কোনো লাভ নেই। জনগণের ভালোবাসা ও আস্থা অর্জন করুন।

তিনি বলেন, দল ভারি করতে খারাপ লোকজনকে দলে টানবেন না। কোনো দাগি আসামি দলের সদস্য হতে পারবে না। আর নিজের অবস্থান শক্ত করতে কেউ কোনো পকেট কমিটি করবেন না। এমপি ও মন্ত্রীর সংবর্ধনায় স্কুল-কলেজের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের রোদের মধ্যে রাস্তার দুই পাশে দাঁড় করাবেন না। আমি এসব ঘৃণা করি। আওয়ামী লীগও এটা পছন্দ করে না।

আওয়ামী লীগের শাসনামলে কেউ অপরাধ করে মাফ পায় না উল্লেখ করে সেতুমন্ত্রী বলেন, সিরাজগঞ্জের মেয়র গুলি করে সাংবাদিক হত্যা করায় তিনি এখন জেলহাজতে। টাঙ্গাইলের এমপিও কারাগারে। কক্সবাজারের এমপির দণ্ড হয়েছে। দুই মন্ত্রীও দুদকের মামলায় নিয়মিত হাজিরা দিচ্ছেন। বগুড়ায় মা-মেয়েকে ধর্ষণ করে তুফান সরকার এখন কারাগারে। ফরিদপুরের আরিফুল ইসলামও ধর্ষণের দায়ে কারাগারে। আওয়ামী লীগ ১৪ কার্যদিবসের মধ্যে চারজনকে ফাঁসি দিয়েছে।

ধামরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ঢাকা-২০ (ধামরাই) আসনের সংসদ সদস্য এমএ মালেকের সভাপতিত্বে ও ঢাকা জেলা পরিষদের সদস্য ও ধামরাই উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. খায়রুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য বেনজীর আহমদ,ঢাকা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সাড়ে ১৭ কোটি টাকা ব্যায়ে বংশী নদীর ওপর ধুলট-পাড়াগ্রাম সেতু এবং পৌনে কোটি টাকা ব্যয়ে ধামরাইয়ের বালিয়া-মির্জাপুরের দেউলি পাকা সড়ক নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হয়েছে।